ঢাকা,শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪

মামলা নেয়ার আদেশ দিয়েছে আদালত

লামায় ইউপি সদস্যসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে ডাকাতির অভিযোগ

লামা প্রতিনিধি ::
বান্দরবান জেলার লামা উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মোহাম্মদ হোসেন মামুন সহ ৫ জনের বিরদ্ধে থানায় ডাকাতির অভিযোগে মামলা নেওয়ার আদেশ দিয়েছেন লামা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক সাখাওয়াত হোসেন চৌধুরী রিয়াদ।।

ঘরের দরজাসহ আসবাবপত্র ভাংচুর, হামলা, নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটের ফৌজদারী অভিযোগের প্রেক্ষিতে এ আদেশ দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত অন্য আসামীরা হলেন- নুরুল আমিন (৩০), নুরুল কাদের (২৭), রায়হান উদ্দিন অপু (২৫), মোঃ নুরুল কবির (৫০), মোহাম্মদ হোসেন মামুন (৪৫) সহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জন।

মামলার বিবরনে বলা হয়, অভিযুক্তরা গত ১৪ জুন দিনগত রাত আনুমানিক ৩টার দিকে পরিকল্পিত ভাবে কাজী আবুল মোমিনের বসতঘরের দরজা ভেঙ্গে প্রবেশ করে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ঘরে থাকা রহিমা বেগম ও তার বোন তাছলিমা আক্তার লিজার উপর হামলা করে। এতে রহিমা বেগম ও তাছলিমা আক্তার লিজা আহত হন। এক পর্যায়ে অভিযুক্তরা ঘরে রক্ষিত নগদ ৬০ হাজার টাকা ও ৩ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়। ঘটনার কথা প্রকাশ করলে দুই বোনকে প্রাণে হত্যা করে লাশ গুম করার হুমকিও দেন অভিযুক্তরা।

এ ঘটনায় রহিমা বেগম বাদী হয়ে সোমবার (২৪ জুন) উপজেলা সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ফৌজদারী অভিযোগ করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে আদালতের বিচারক অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা গ্রহণের আদেশ দেন।

ভাংচুর, হামলা, লুটপাটের ঘটনায় উল্লেখিত অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা নেওয়ার আদেশের সত্যতা নিশ্চিত করে উপজেলা সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের আইনজীবি মো. মামুন মিয়া বলেন, বাদীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা নেওয়ার জন্য লামা থানা পুলিশের ওসিকে আদেশ দেন আদালত।

তবে এসব বিষয়ে অভিযুক্ত পক্ষের কারও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

পাঠকের মতামত: