ঢাকা,রোববার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩

আলীকদম-থানচি সহ ৪ উপজেলায় ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা বাড়ল

বান্দরবান প্রতিনিধি :: বান্দরবানের রোয়াংছড়ি, রুমা, থানচি এবং আলীকদম এ চার উপজেলায় দেশি-বিদেশি পর্যটকদের ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ দ্বিতীয় দফায় বাড়ানো হয়েছে।

আজ রোববার সন্ধ‍্যায় বান্দরবানের জেলা ম‍্যাজিস্ট্রেট ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি সই করা এক গণবিজ্ঞপ্তিতে এ নিষেধাজ্ঞার আদেশ জারি করা হয়। এর আগে জারি করা নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ আজই শেষ হওয়ার কথা ছিল।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বান্দরবানের বিভিন্ন দুর্গম এলাকার গহীন অরণ্যে লুকিয়ে থাকা সন্ত্রাসীদের অবস্থান খুঁজে পেতে তল্লাশি অভিযান চালাবে সেনাবাহিনী। এ কারণে বান্দরবান সেনা রিজিয়নের পক্ষ থেকে বান্দরবানের রুমা, রোয়াংছড়ি, থানচি এবং আলীকদম উপজেলায় পর্যটকদের ভ্রমণ বন্ধ রাখতে রোববার (৩০ অক্টোবর) জেলা প্রশাসনকে চিঠি দিয়ে জানানোর পরিপ্রেক্ষিতে আজ থেকে এ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হলো। এ নিষেধাজ্ঞা আগামী ৪ নভেম্বর পর্যন্ত বলবত থাকবে।

র‍্যাব, বিজিবি এবং পুলিশের যৌথ জঙ্গি ও সন্ত্রাস দমন অভিযানের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২০ অক্টোবর রাতে বাংলাদেশ-মিয়ানমার-ভারত সীমান্ত লাগোয়া রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার বড়থলি এবং বান্দরবানের রুমা ও রোয়াংছড়ি উপজেলার দুর্গম এলাকা থেকে নব প্রতিষ্ঠিত জঙ্গি সংগঠন জমাআতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারক্বীয়ার ৭ সদস্য এবং স্থানীয় সন্ত্রাসী গ্রুপ কেএনএফের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়।

নিষেধাজ্ঞা আরোপের চিঠিতে বলা হয়, বান্দরবান পার্বত্য জেলার রুমা, রোয়াংছড়ি, আলীকদম এবং থানচি উপজেলায় সশস্ত্র বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসীদের উপস্থিতির বিষয়ে সুনির্দিষ্ট তথ্য সংগ্রহের জন্য বান্দরবান রিজিয়নের টহল কার্যক্রম পরিচালনা এবং গোয়েন্দা তৎপরতা অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে পর্যটকদের নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনা করে বান্দরবান পার্বত্য জেলার রুমা, রোয়াংছড়ি, আলীকদম এবং থানচি উপজেলায় স্থানীয় ও বিদেশি পর্যটকদের ভ্রমণ আগামী ৪ নভেম্বর পর্যন্ত নিষিদ্ধ।

এর আগে গত ১৮ অক্টোবর জেলা ম‍্যাজিস্ট্রেট এক আদশে বান্দরবানের রোয়াংছড়ি ও রুমা উপজেলায় পর্যটক ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। এর তিন দিনপর ২৩ অক্টোবর আদেশে জেলার থানচি ও আলীকদম উপজেলায় নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়।

পাঠকের মতামত: