ঢাকা,রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

উত্তাল হাটহাজারী মাদরাসা

আনাস মাদানীর বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক ::
বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছে কওমি অঙ্গনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান চট্টগ্রামের হাটহাজারী দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদরাসা। আজ বুধবার যোহর নামাজের পর থেকেই মাদরাসার হাজার হাজার শিক্ষার্থী বিক্ষোভ শুরু করে। ৬ দফা দাবিকে সামনে নিয়ে তাদের আন্দোলন হলেও মূল দাবিটি হলো, হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা আহমদ শফীর ছেলে আনাস মাদানীকে বহিষ্কার করতে হবে।

সূত্র জানায়, বেশ অনেক দিন ধরেই মাদরাসার ভেতরে-বাইরে শফিপুত্র আনাস মাদানীর ওপর ক্ষোভ বাড়তে থাকে। আল্লামা শফী অসুস্থ হয়ে পড়ার পর থেকেই এককভাবে সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন আনাস মাদানী। এমনকি মাদরাসার সহকারী পরিচালকের পদ থেকে প্রবীণ আলেম আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে কৌশলে সরিয়ে দেন। চাকরিচ্যুত করা হয়েছে আরো অনেক সিনিয়র শিক্ষককে।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, আল্লামা শফী সম্পূর্ণ মা’যুর (অক্ষম) হয়ে পড়েছেন। তিনি কোনো সিদ্ধান্ত দেওয়ারও ক্ষমতা রাখেন না। অথচ আনাস মাদানী দিনের পর দিন তার হটকারী সিদ্ধান্তগুলোই বাবার নামে চালিয়ে দিচ্ছেন। যার কারণে মাদরাসা পরিচালনায় বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে পড়েছে। তাই অতি দ্রুত আনাস মাদানীকে বহিষ্কার করতে হবে এবং আল্লামা শফীর পরিবর্তে নতুন মুহতামিম নিয়োগ দিতে হবে।

কিছুদিন আগে কোনো লিখিত নোটিশ ছাড়াই অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে আল্লামা শাহ আহমদ শফীর প্রেস সচিব মাওলানা মুনীর আহমদকে। একইভাবে ১১ জন শিক্ষক কর্মকর্তাকে মৌখিক নির্দেশে মাদরাসা থেকে বের হয়ে যেতে বলা হয়। তাতে করে ক্ষোভ বাড়ছিল সবার মধ্যে। আজ যোহরের নামাজের পর যার আনুষ্ঠানিক বিস্ফোরণ ঘটেছে। আনাস মাদানীকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে শিক্ষার্থীরা।

পাঠকের মতামত: