ঢাকা,মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪

চকরিয়াকে আধুনিকভাবে গড়ে তুলতে নেয়া হচ্ছে ৬২০ কোটি টাকার প্রকল্প

নিজস্ব প্রতিবেদক::চ৷  করিয়া পৌরসভাকে আধুনিক মানের পৌরশহর হিসেবে গড়ে তুলতে প্রায় ৬২০ কোটি টাকার একটি প্রকল্প গ্রহণ করেছে জাপানী দাতা সংস্থা জাইকা। প্রস্তাবিত এ উন্নয়ন প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই ও কাজের স্থান পরিদর্শন করতে শনিবার (২৫ মে) চকরিয়ায় আসেন জাইকার বাংলাদেশ প্রধান ইচিগুছি তোমোহাইডের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল। এ সময় তার সাথে ছিলেন জাইকার প্রকল্প পরিচালক আবদুস সাত্তার, টিম লিডার ফুসাকা ও সংশ্লিষ্ট প্রকেীশলীরা। তারা চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরীকে সাথে নিয়ে পুরো দিন সম্ভাব্য কাজের স্থান পরিদর্শন করেন।

মেয়র আলমগীর চৌধুরী জানান, চকরিয়া পৌরসভাকে আধুনিক মানে এগিয়ে নিতে এবং পরিচ্ছন্ন শহর হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষে ও পৌরবাসীর নাগরিক সুবিধা নিশ্চিৎ করতে জাপানী দাতা সংস্থা জাইকার কাছে বরাদ্দ চাওয়া হয়। এর প্রক্ষিতে প্রতিনিধি দলটি চকরিয়া পৌরশহর পরিদর্শনে আসেন।
পরিদর্শনের সময় তারা শহরের মুল কেন্দ্রে একটি শিশু পার্ক, যানজট নিরসনে প্রধান সড়কে একটি ফ্লাইওভার, রাস্তা ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন, ইসলামনগরে ময়লার ডিপো থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন, চকরিয়া কলেজ গেইট এলাকায় একটি ওভার পাস সহ চকরিয়া পৌরসভার দেয়া বেশ কয়েকটি প্রস্তাব পরিদর্শন করেন।

চকরিয়া পৌরসভার বেশ কয়েকজন সচেতন নাগরিকের মতামত পৌর মেয়রের প্রস্তাবিত উপরোক্ত প্রকল্প গুলোতে যদি জাইকা অর্থ ছাড় দেয় এবং সে অর্থে কাজগুলো যথাযত ভাবে বাস্তবায়িত হয় তাহলে চকরিয়া পৌরসভা একটি আধুনিক ও মডেল পৌরসভাতে উন্নীত হবে, পাশাপাশি নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত হবে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, ‏চকরিয়া পৌরসভার নির্বাহী কর্মকর্তা মাসউদ মোরশেদ, নির্বাহী প্রকৌশলী জাকের হোসেন, ‏প্যানেল মেয়র-১ ফোরকানুল ইসলাম তিতু, প্যানেল মেয়র-২ মুজিবুল হক, প্যানেল মেয়র-৩ রাশেদা বেগম, ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নুরুচ্ছফি, ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইফুল ইসলাম, ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইফতেখার উদ্দিন হানিফ, ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাফর আলম (কালু), ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুস সালাম, ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নুরুল আমিন, ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বেলাল উদ্দিন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ফোরহানা ইয়াসমিন, মহিলা কাউন্সিলর আন্জুমান আরা, সহকারি প্রকৌশলী মুজিবুর রহমান, উপ-সহকারি প্রকৌশলী সজীব চাকমা সহ প্রকল্পের কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তাবৃন্দ।

পাঠকের মতামত: