ঢাকা,সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩

চকরিয়া জমজম হাসপাতালের কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ, ৭২ ঘণ্টার পর চালু থাকলে সিলগালা

নিউজ ডেস্ক :: চকরিয়া জমজম হাসপাতালের কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ, ৭২ ঘণ্টার পর চালু থাকলে সিলগালা
জমজম হাসপাতালের (প্রাইভেট) কার্যক্রম সাময়িক বন্ধ রাখার নির্দেশনা দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ভুয়া ডাক্তার শনাক্ত হওয়াসহ ভুল তথ্য উপস্থাপন করে নবায়ন করায় এ নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

নির্দেশনার আলোকে কক্সবাজার জেলা সিভিল সার্জন ডা. মাহবুবুর রহমান প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন।

গত বৃহস্পতিবার দুপুর বারোটার দিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা লিখিতভাবে জানিয়ে দেওয়া হয় জমজম হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে। এর সত্যতা নিশ্চিত করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শোভন দত্ত বলেন, ‘স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে বৃহস্পতিবার দুপুর বারোটার পর থেকে।

তবে যেহেতু হাসপাতালটিতে আগে থেকেই রোগী ভর্তি আছে সেহেতু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ৭২ ঘণ্টার সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে। যাতে ভর্তিকৃত রোগীকে ছাড়পত্র দিতে পারে। পাশাপাশি এই ৭২ ঘণ্টা সময়ে নতুন করে রোগী ভর্তি করাসহ যাবতীয় কার্যক্রম সম্পূর্ণরূপে বন্ধ রাখে সেজন্য প্রাথমিক সুযোগ দেওয়া হয়েছে।’

উপজেলা স্বাস্থ্য প্রধান বলেন, ‘বেঁধে দেওয়া ৭২ ঘণ্টার পরও যদি হাসপাতালের কোনো কার্যক্রম চালু রাখা হয় তাহলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে হাসপাতালটি সিলগালা করে দেওয়া হবে। এই বিষয়ে উপজেলা প্রশাসনের সঙ্গে কথা হয়েছে।’

গত ২৪ নভেম্বর স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হাসপাতাল ও ক্লিনিক শাখার পরিচালক ডা. শেখ দাউদ আদনান স্বাক্ষরিত অফিস আদেশে নির্দেশ দেওয়া হয় ‘জমজম হাসপাতাল ঐঝগ– (৮০৭৬৬, ৭৫৮৬২), চিরিংগা, ওয়ার্ড নং–০৮, চকরিয়া পৌরসভা, চকরিয়া, কক্সবাজার প্রতিষ্ঠানটি অনলাইন ডাটাবেইজ পরীক্ষা করে দেখা যায় প্রতিষ্ঠানটিতে কর্তব্যরত চিকিৎসকের নামের স্থানে ডা. হুমায়ন (ইগউঈ জবম. ঘড়–৮৪১৩৮) অন্তর্ভূক্ত করেন।

বিএমডিসি ডাটা বেইজে পরীক্ষা করে ৮৪১৩৮–এ ডা. মাইশা সাদের নাম পাওয়া যায়। ভুল তথ্য উপস্থাপন করে হাসপাতাল নবায়ন করায় প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম সাময়িককভাবে বন্ধ রাখতে নির্দেশ প্রদান করা হলো।

এই আদেশ বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তর এবং কর্মকর্তাদেরও অনুলিপি দেওয়া হয়। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে কক্সবাজার জেলা সিভিল সার্জনের নির্দেশনার পত্র হস্তগত হয়েছে কী–না জানার জন্য মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হয় জমজম হাসপাতাল প্রাইভেট লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. গোলাম কবিরের সঙ্গে। কার্যক্রম বন্ধ রাখা সংক্রান্ত পত্রটি হাসপাতালের দায়িত্বরত ম্যানেজার প্রাপ্তিস্বীকারমূলে গ্রহণ করেছেন বলে তিনি স্বীকার করেন। এই বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণের কথাও বলেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম কবির।

প্রসঙ্গত, গত ১৬ নভেম্বর গোপন খবরের ভিত্তিতে হাসপাতালটিতে অভিযান পরিচালনা করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. রাহাত উজ–জামান। এ সময় হাসপাতাল থেকে মো. হুমায়ুন কবির নামে একজন ডাক্তারকে (লিভার, পরিপাকতন্ত্র, ডায়াবেটিস ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ) ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে গ্রেপ্তারের পর ভুয়া শনাক্ত হওয়ায় তাকে তিন মাসের কারাদণ্ড এবং নগদ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে জেলহাজতে প্রেরণ করেন।

এ ব্যাপারে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জেপি দেওয়ান বলেন, ‘স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা বাস্তবায়নে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে। আপাতত ভর্তিকৃত রোগী রিলিজ করতে ৭২ ঘণ্টা সময় বেধে দেওয়া হয়েছে।’

পাঠকের মতামত: