ঢাকা,শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২

সাংসদ জাফরের দখলবাজি বন্ধ না হলে বাড়ি ও অফিস ঘেরাও করার হুমকি দিলেন সাবেক সাংসদ মো. ইলিয়াছ

স্টাফ রিপোর্টার, চকরিয়া :: কক্সবাজারের চকরিয়া-পেকুয়ার সংসদ জাফর আলমের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার, জবরদখল, সন্ত্রাস, নৈরাজ্য ও দূর্নীতির অভিযোগ তুলেছেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান ও কক্সবাজার-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মোহাম্মদ ইলিয়াছ।

তিনি বুধবার (১০ আগস্ট) দুপুর ১২টার দিকে তেল, গ্যাস, ডিজেল ও অকটেনসহ নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে চকরিয়া উপজেলা জাতীয় পাটি ও মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা শাখার উদ্যোগে চকরিয়া কোর্ট সেন্টারে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
তিনি এসময় সাংসদ জাফর কর্তৃক অব্যাহত অনিয়ম, দুর্নীতি স্বজনপ্রীতি ও জবর দখল বন্ধ না হলে তার বাড়ি ও অফিস ঘেরাওয়ের হুমকি দেন।
সাবেক সাংসদ মোহাম্মদ ইলিয়াছ বলেন, সরকার দলীয় সাংসদ জাফর আলমের নেতৃত্বে চকরিয়ায় ৫০ হাজার একর চিংড়ি ঘেরে জবরদখল ও নৈরাজ্য চলছে। তার নেতৃত্বে এখানে আরেকটি সরকার প্রতিষ্ঠা হয়েছে।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে উদ্দেশ্য করে সাবেক সাংসদ ইলিয়াছ বলেন, ‘জাফরের নেতৃত্বে চিংড়ি ঘের জবর দখলের ঘটনা ঘটছে। সেই সব দখলবাজি বন্ধ করতে হবে। এসব দখল বাজির বন্ধে সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রতিবেদন দিতে বলেন তিনি। অন্যথায় জনগণকে সাথে নিয়ে তার বাড়ি ও অফিস ঘেরাও করবো।’ সময় এসছে এখন এসব দখলবাজ ও দূর্নীতিবাজের বিরুদ্ধে স্বোচ্ছার হবার। এসব দখলবাজ থেকে চকরিয়া-পেকুয়ার জনগণ জাফরের অত্যাচার থেকে বাঁচতে চায়। এসব দখলবাজ থেকে চকরিয়া-পেকুয়ার জনগণ মুক্তি চায়।
সাবেক সংসদ ইলিয়াছ আরও বলেন, জ্বালানী তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বাড়ানোর ফলে সাধারণ মানুষের দম বন্ধের উপক্রম হয়েছে। তাই অবিলম্বে নিত্যপণ্যের দাম কমিয়ে জনগণের সহনীয় পর্যায়ে নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।
অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন-কক্সবাজার জেলা মহিলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক আসমাউল হোসনা, জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য ছিদ্দিক আহমদ মেম্বার, চকরিয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল আমিন ও সাধারণ সম্পাদক সিরাজ উদ্দিন।
এদিকে ১৪ দলীয় মহাজোট ক্ষমতায় যাবার সাড়ে তিনবছর পর হঠাৎ সাবেক এমপি ইলিয়াছ বর্তমান সাংসদ জাফরের দূর্নীতির বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে মুখ খোলায় সরকার দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। বুধবার সকাল দশটায় জাতীয় পাটির চকরিয়া শাখার উদ্যোগে ইলিয়াছের নেতৃত্বে জ্বালানী তেলের মুল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে চকরিয়া সদরে বিক্ষোভ মিছিলের পর থেকে হটাৎ করে চকরিয়ার রাজনীতি উত্তপ্ত হয়ে উঠে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মাঝে নানা প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত হয়েছে। আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, জাতীয় পাটি বর্তমান সরকারের শরীকদল হয়ে ও সরকারের ভাবমূর্তী ক্ষুন্ন করে চলেছে। সাবেক এমপি ইলিয়াছ শরীক দলের লোক হয়ে কেমনে আওয়ামী লীগের এমপি ও সরকারের বিরুদ্ধে সমালোচনা করছেন। এটি দলের জন্য শুভ লক্ষণ নয়। তারা অনতিবিলম্বে ইলিয়াছের এসব বক্তব্য পরিহার করার দাবী জানান।
অপরদিকে গত কয়েকদিন ধরে এমপি জাফরের স্ত্রী সাহেদা বেগমের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার, দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি, জবর দখলের সংবাদ জাতীয়, আঞ্চলিক ও স্থানীয় পত্রিকায় প্রকাশিত হলে পুরো কক্সবাজার জুড়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে ব্যাপক আলোচনা চলছে। দুদকের একাধিক টিম এখন শাহেদা জাফরের অবৈধ সম্পদের অনুসন্ধান শুরু করেছে। সবমিলিয়ে চকরিয়া-পেকুয়ায় এমপি জাফর এখন অনেকটাই চাপে এবং কোনঠাসা হয়ে পড়েছেন।

পাঠকের মতামত: