Home » উখিয়া » উখিয়ায় ৮টি বাড়ীতে সিরিজ ডাকাতি, ৪ লক্ষাধিক টাকা মালামাল লুট

উখিয়ায় ৮টি বাড়ীতে সিরিজ ডাকাতি, ৪ লক্ষাধিক টাকা মালামাল লুট

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

ফারুক আহমদ, উখিয়া ::

উখিয়ার হলদিয়া পালং ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের দূর্গম পাহাড়ী এলাকা উত্তর বড়বিল গ্রামের মঙ্গলবার গভীর রাতে ৮টি বাড়ীতে র্দুধর্ষ গণ ডাকাতি সংঘঠিত হয়েছে। সষস্ত্র ডাকাত দল বাড়ীতে ডুকে মারধর ও অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা ও মূল্যবান মালামাল সহ প্রায় ৪ লক্ষাধিক টাকা লুটপাট করে নিয়ে যায়। এ সময় ডাকাতের প্রহারে নারী-পুরুষ সহ ৫জন আহত হয়েছে। গণ ডাকাতির ঘটনায় আইনশৃংখলা পরিস্থিতি চরম অবনতি দেখা দিয়েছে।

শিক্ষানুরাগী আজিজুল হক চৌধুরী সাংবাদিকদের জানান, গত কয়েকদিন প্রবল বর্ষণ ও মৌসুমী বায়ুর সুযোগে একদল অস্ত্রধারী ডাকাত দূর্গম এলাকা উত্তর বড়বিল গ্রামে ভয়াবহ ডাকাতি সংঘটিত করে। উক্ত ডাকাত বাহিনী একের পর এক ৮টি বাড়ীতে সিরিজ ডাকাতি করে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও মালামাল লুটপাট করে নিয়ে যায়। এ ধরনের সিরিজ ডাকাতির ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে চরম উৎকন্ঠা ও আতংক বিরাজ করছে। স্থানীয় বাসিন্দা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ১৫/২০ জনের ডাকাত দল মালেশিয়া প্রবাসী মুফিজুর রহমান, দুদু মিয়া, মো: জাহাঙ্গীর, ছৈয়দ আলম, মোক্তার মিয়া, আবু তাহের ও বাবুল মিয়ার বাড়ির দরজা ভেঙে ঘরে ডুকে হাত-পা বেধেঁ তান্ডবলীলা চালায়। গণ ডাকাতি কালে অস্ত্রের মুখে জিম্মি ও মারধর করে মালামাল লুটপাট চালায়। এ সময় বাধাঁ দিতে গিয়ে ডাকাতের প্রহারে ৫ জন আহত হয়। তৎমধ্যে দুদুমিয়ার ছেলে রিদুয়ানকে (২২) মারধর করে হাত-পা বেধেঁ অপহরণ করে নিয়ে যায়। বুধবার সকালে তাকে পাহাড়ী এলাকা থেকে মুমুর্ষ অবস্থায় এলাকাবাসী উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় মেম্বার মোক্তার আহমদ গণ ডাকাতির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল খায়েরের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

#

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

আ.লীগ বাদে জাতীয় ঐক্য হবে না: কাদের

It's only fair to share...000আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের  ...