Home » কক্সবাজার » সীমান্ত এলাকার ডিসিদের কাছে মাদক চোরাকারবারিদের তালিকা

সীমান্ত এলাকার ডিসিদের কাছে মাদক চোরাকারবারিদের তালিকা

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

দীন ইসলাম ::
মাদক চোরাকারবারিদের তালিকা সীমান্তবর্তী জেলার ডিসিদের কাছে পৌঁছে গেছে। ওই তালিকায় রয়েছে মাদক চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত অসাধু ব্যক্তিদের নাম, ঠিকানা ও ব্যক্তিগত পরিচয়। এ ছাড়া বিভিন্ন জেলার মাদক চোরাচালানের রুট/ পয়েন্ট , বেচাকেনার স্পট ও স্থানগুলো সম্পর্কেও বিস্তারিতভাবে বলা হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনের ভিত্তিতে সারা দেশের মাদক চোরাকারবারিদের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। জেলাওয়ারি ওই তালিকায় উল্লেখ করা মাদক চোরাচালানকারিদের নাম, পরিচয় তুলে ধরা হয়েছে। খবর মানবজমিনের। পাশাপাশি তাদের সামাজিকভাবে বয়কট করার পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে। একাধিক ডিসি অফিস সূত্রে জানা গেছে, সুরক্ষা সেবা বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী মাদক চোরাকারবারিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার প্রতিবেদন পাঠাচ্ছেন তারা। ওই সব প্রতিবেদনের কপি তারা মন্ত্রিপরিষদ সচিবের কাছেও পাঠাচ্ছেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশের চার দিকে ভারত ও মিয়ানমারের সীমান্ত রয়েছে। এর মধ্যে ভারত থেকে ফেনসিডিলসহ বিভিন্ন মাদক চোরাকারবারিরা নিয়ে আসছে। অন্যদিকে মিয়ানমার থেকে দেদারসে ঢুকছে ইয়াবা। এসব মাদক চোরাকারবারি ও কেনাবেচার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের তালিকা জয়পুরহাট, গাইবান্ধা, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, সাতক্ষীরা, দিনাজপুর, রাঙ্গামাটি, বান্দরবান, খাগড়াছড়ি, কক্সবাজার, জামালপুর, হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার, সিলেট ও সুনামগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলার ডিসির কাছে পাঠানো হয়েছে। এদিকে গত মাসের প্রথম দিকে জামালপুরের ডিসি আহমেদ কবীর মন্ত্রিপরিষদ সচিবের কাছে ভারত ও মিয়ানমার থেকে বিধিবহির্ভূতভাবে আসা বিভিন্ন ধরনের মাদকদ্রব্য চোরাচালানি ও ব্যবহারকারিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ সর্ম্পকে একটি চিঠি দেন। ওই চিঠিতে তিনি জানান, জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ এবং বকশীগঞ্জ উপজেলার সঙ্গে ভারতের সীমান্ত রয়েছে। এর আগে পত্রের মাধ্যমে ওই সব সীমান্ত এলাকায় মাদক চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত অসাধু ব্যক্তিদের নাম ও ঠিকানা, মাদক চোরাচালানের পয়েন্ট বা রুট এবং মাদকদ্রব্য কেনাবেচার স্পট বা স্থানগুলো যাচাই বাছাই করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়। এ ছাড়া এসব মাদক চোরাকারবারিদের বিরুদ্ধে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমে তাদের গ্রেফতার করে শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

লামায় মোটর সাইকেল লাইনে ব্যাপক চাঁদাবজির অভিযোগ

It's only fair to share...000মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি ::   বান্দরবানের লামায় যাত্রীবাহী মোটর ...