ঢাকা,শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২

সাবেক সাংসদ ইলিয়াছের মালিকানাধীন

চকরিয়ায় চিংড়ি প্রকল্পে দুর্বৃত্তদের তাণ্ডব ৫৫ মণ চিংড়ি মাছ লুট

নিজস্ব প্রতিবেদক, চকরিয়া ::
কক্সবাজারের চকরিয়ায় জাতীয় পাটি (এরশাদ) দলীয় সাবেক সাংসদ হাজি মোহাম্মদ ইলিয়াছের মালিকানাধীন ২০ একর আয়তনের একটি চিংড়িঘেরে হামলা-লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। ১০-১৫ জনের অস্ত্রধারী দুর্বৃত্তদল হানা দিয়ে অস্ত্রের মুখে ঘের কর্মচারীদের জিন্মি করে লুটে নিয়ে গেছে ৫৫ মণ চিংড়ি মাছ। এছাড়াও ঘের থেকে পাঁচটি বিহিঙ্গী জাল, ১০ টি জাকি জালসহ প্রায় ১ লাখ ৩০ হাজার টাকার সরঞ্জামদি লুট হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) ভোররাতে চকরিয়া উপজেলার চিংড়িজোনের চরণদ্বীপ মৌজার ১৮ নম্বর দাগের সাংসদের নিজ নামীয় ২০ একর আয়তনের চিংড়িঘেরে ঘটেছে এ হামলা ও লুটের ঘটনা।
এ ঘটনায় সাবেক সাংসদ হাজি মোহাম্মদ ইলিয়াছ বাদি হয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে চকরিয়া থানায় একটি এজাহার জমা দিয়েছেন। এজাহারে কারো নাম উলে­খ্য না করে ১০-১৫জন অস্ত্রধারীকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে। ঘের মালিক হাজি মোহাম্মদ ইলিয়াছ (২০১৪-২০১৮) কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনে মহাজোটের শরীক জাতীয় পাটি দলীয় সাংসদ ছিলেন। তিনি বর্তমানে জাতীয় পাটির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান পদে আছেন।
চকরিয়া থানায় জমা দেওয়া এজাহারে সাবেক সাংসদ হাজি মোহাম্মদ ইলিয়াছ বলেন, বৃহস্পতিবার ভোররাত আনুমানিক সাড়ে তিনটার দিকে ১০-১৫জনের মুখোশ পরিহিত অস্ত্রধারী তাঁর মালিকানাধীন চরণদ্বীপ মৌজার ২০ একর আয়তনের চিংড়িঘেরে হানা দেয়। এসময় অস্ত্রধারী দুর্বৃত্তরা ঘেরে থাকা কর্মচারীদেরকে অস্ত্রের মুখে জিন্মি করে পলবোটের তত্তা খুলে দিয়ে জাল বসিয়ে ১০ লাখ টাকা মুল্যের ২৫ মণ বাগদা চিংড়ি মাছ, ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা মুল্যের ৩০ মণ লইল্যা চিংড়ি মাছসহ বিভিন্ন জাতের মাছ লুটে নেয়।
একইসময়ে তাঁরা ঘের থেকে পাঁচটি বিহিঙ্গী জাল, ১০ টি জাকি জালসহ প্রায় ১ লাখ ৩০ হাজার টাকার সরঞ্জামদি লুট করে তাদের ফিশিং বোটে তুলে নেয়। এরপর আমার ঘের কর্মচারীরা শোর-চিৎকার শুরু করলে আশপাশের ঘের মালিক ও চাষীরা এগিয়ে আসতে দেখে ৩-৪ রাউন্ড ফাকা গুলি করতে করতে অস্ত্রধারীরা লুন্ডিত মাছ ও মালামাল নিয়ে ফিশিং বোট যোগে পালিয়ে যায়।
চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চন্দন কুমার চক্রবর্তী বলেন, সাবেক সাংসদ হাজি মোহাম্মদ ইলিয়াছের চিংড়িপ্রকল্পে হামলা-লুটের ঘটনায় এখনো (বৃহস্পতিবার) রাত ৯টা পর্যন্ত কোন অভিযোগ পাইনি। তবে এরপরে অভিযোগ পেলে অবশ্যই তদন্তসাপেক্ষে এব্যাপারে আইনী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

পাঠকের মতামত: