ঢাকা,শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১

কক্সবাজারে নগর ছাত্রলীগ নেতার অস্বাভাবিক মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক ::
কক্সবাজারে বেড়াতে গিয়ে রাফসান ইরফান (২৫) নামে নগর ছাত্রলীগের এক নেতার অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। গতকাল শুক্রবার সকালে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে মারা যান।

রাফসান নগর ছাত্রলীগের কোতোয়ালী থানার সাধারণ সম্পাদক প্রত্যাশী ছিলেন বলে জানিয়েছেন তার সহকর্মীরা। রাফসান নগরীর এনায়েত বাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা সৈয়দুল হকের একমাত্র সন্তান। আজ শনিবার বাদ জোহর চৈতন্যগলি মসজিদ প্রাঙ্গণে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন তার বন্ধু মো. নোমান হোসেন।

পুলিশের ধারণা, অতিরিক্ত মদ্যপানে মৃত্যু হয়েছে রাফসানের। তার শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন ছিল না। এ বিষয়ে কক্সবাজার থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড হয়েছে বলে জানিয়েছেন লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুতকারী এসআই আতিকুজ্জামান।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ মুনীর উল গিয়াস শুক্রবার সন্ধ্যায় বলেন, রাফসান নামের ওই যুবক বে ওয়ান্ডারস নামের হোটেলে উঠেছিলেন। শুক্রবার সকালে অসুস্থবোধ করায় তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে তার মৃত্যু হয়। আমরা লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়েছি। ময়না তদন্ত শেষে বিকেলে পরিবারের হাতে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে আমরা জেনেছি, অতিরিক্ত মদ্যপানের কারণে তার মৃত্যু হয়েছে।

জানা গেছে, ১৫ সেপ্টেম্বর কক্সবাজারে বেড়াতে যান রাফসান ইরফান। রাফসান আরেক বন্ধু পিয়মকে নিয়ে কক্সবাজারের বে ওয়ান্ডারস নামে একটি হোটেলে উঠেন। ১৬ সেপ্টেম্বর রাত ৯টার পর তাদের অতিরিক্ত বুকের ব্যথা উঠে এবং বমি হয়। পরে স্বস্তিবোধ করলে তারা ঘুমিয়ে পড়েন। শুক্রবার ভোরে আবারও বুকে বেশি ব্যথা অনুভব করলে তাদের দুইজনকে কক্সবাজারের বেসরকারি একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে তাদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানে মৃত্যু হয় রাফসানের। আরেকবন্ধু পিয়ম সুস্থবোধ করলে সন্ধ্যায় রাফসানের লাশের সাথে চট্টগ্রামে ফিরে আসেন। এ বিষয়ে কথা বলতে, পিয়মের ব্যবহৃত মোবাইলে বেশ কয়েকবার ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

এ বিষয়ে লাশের সুরতহালকারী কক্সবাজার সদর মডেল থানার এসআই আতিকুজ্জামান বলেন, আমি নিজেই লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন করেছি। শরীরের কোথাও কোন আঘাতের চিহ্ন ছিল না। পরে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছি। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া গেলেই মৃত্যুর আসল কারণ সম্পর্কে জানা যাবে।

পাঠকের মতামত: