ঢাকা,মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

ম্যাসাজ পার্লারের আড়ালে চলে অনৈতিক কর্মকাণ্ড

অনলাইন ডেস্ক :: পর্যটন নগরী কক্সবাজারে বেড়ে চলেছে অনুমোদনহীন অবৈধ ম্যাসাজ পারলার। এসব পার্লারের আড়ালে চলছে অনৈতিক ও অসামাজিক কর্মকা-। অভিযোগ আছে এই ধরনের অনৈতিক কর্মকান্ডের সুযোগ দিয়ে মোটা অংকের অর্থ মাসোহারা তুলছে এক শ্রেণির প্রভাবশালী।
কক্সবাজার হোটেল-মোটেল জোনের লংবীচ হোটেলের বিপরীত পাশে অবস্থিত হোয়াইট বিচ হোটেল। হোয়াইট বীচ হোটেলের তৃতীয় তলায় গড়ে উঠেছে অ্যাঞ্জেল টাচ নামের একটি ম্যাসাজ পার্লার। এছাড়া ওশান প্যারাডাইজ হোটেলের বিপরীত দিকে গড়ে উঠেছে হংকং স্পা নামে আরও একটি ম্যাসাজ পার্লার। কিন্তু কোনটিরই অনুমোদন নেই। সম্পূর্ণ অবৈধভাবে প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় চলে এগুলো। অভিযোগ রয়েছে এসব পার্লারের ভেতরে ম্যাসাজের বদলে চলছে পতিতাবৃত্তি।
জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, এসব পার্লারের অনুমোদনের জন্য আবেদন করলেও তাদের পরিবেশ ভালো না থাকায় অনুমতি দেয়া হয়নি। তারপরও তারা স্থানীয় প্রভাবশালী নেতাদের হাত করে এসব পার্লারে অবৈধ কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বাইরে থেকে ভেতরের পরিবেশ সম্পর্কে অনুমান করা খুবই কঠিন। ভেতরে প্রবেশ করলেই চোখে পড়বে খন্ড খন্ড কক্ষে নারীরা অপেক্ষা করছেন। এখানে চলছে ভয়ংকর অনৈতিক কর্মকা-। স্কুল-কলেজের উঠতি বয়সী ছেলেরাসহ যুব-সমাজের একটি বড় অংশ এদের কাস্টমার। সেখানে দেখা মিলে ম্যাসাজের দায়িত্বে থাকা সুন্দরী রমণীদের।
একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্র বলছে, শুধু স্কুল-কলেজ পড়–য়ারাই নয়, আড়ালে এ ম্যাসাজ পার্লারে আসে ইয়াবা গডফাদাররাও। তারা এখানে এসে আত্মগোপনে থাকে। আর এসব ম্যাসাজ পার্লারের মালিকরা মোটা অংকের বিনিময়ে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে অবৈধ কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে।
অ্যাঞ্জেল টাস ম্যাসাজ পারলারের পাশের ফ্ল্যাটের একজন জানান, এখানে অনৈতিক কাজ হয়, তা সবাই জানে। কিন্তু প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয় না। অসামাজিক এসব পার্লার থেকে প্রশাসনের কিছু অসৎ কর্মকর্তা মোটা অংকের মাসোহারা নিয়ে তাদের সুযোগ করে দেন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে কক্সবাজারের সাবেক এনডিসি লুৎফর রহমান বলেন, ‘আমি দায়িত্বে থাকাকালীন অ্যাঞ্জেল টাস ম্যাসাজ কর্তৃপক্ষ অনুমোদনের জন্য আবেদন করে। কিন্তু কোন এটি অনুমোদন পাওয়ার যোগ্য নয়। তাই তাদেরকে অনুমোদন দেওয়া হয়নি।’
তিনি আরও বলেন, একই ভাবে হংকংসহ অনেকে অনুমোদনের জন্য আবেদন করেছিল। কিন্তু প্রতিষ্ঠানকে অনুমোদন দেওয়া হয়নি। সবগুলোই অনুমোদনহীন অবৈধভাবে চলছে।
মোবাইলে এসব বিষয়ে অ্যাঞ্জেল টাস ম্যাসাজ পার্লারের ম্যানেজার সাজু বলেন, ‘আমাদের জেলা প্রশাসনের সব অনুমোদন রয়েছে। আপনি এসে দেখে যান।’ পরে সেখানে গেলে কিছুই দেখাতে পারেননি তিনি। পরে আর্থিক প্রলোভন দেখিয়ে নিউজ না করার অনুরোধ করেন।
এ বিষয়ে কক্সবাজারের ভারপ্রাাপ্ত জেলা প্রশাসক মো. আশরাফুল আফসার বলেন, ‘অনুমোদনহীন কোন প্রতিষ্ঠান চলতে পারে না। খোঁজ খবর নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

পাঠকের মতামত: