ঢাকা,বুধবার, ২৯ মে ২০২৪

চকরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

আ.লীগের সিনিয়র নেতারা মাঠে নামায় পাল্টে যাচ্ছে ভোটের হিসাব

আসন্ন ৬ষ্ঠ চকরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতারা প্রচারণায় মাঠে নেমেছে । সিনিয়র নেতা সবাইকে এক মঞ্চে দেখে চকরিয়া উপজেলা ও পৌরসভা আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতা-কর্মীরাও উচ্ছ্বাস প্রকাশ করছেন। উল্লেখ, গত বৃহস্পতিবার (১০ মে) চকরিয়া কোরক বিদ্যাপীঠের হল রুমে কর্মী সভা করেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও নবগঠিত উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব ফজলুল করিম সাঈদী।

এতে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সালাহউদ্দিন আহমেদ সিআইপি,জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী,চকরিয়া উপজেলা সভাপতি সরওয়ার আলম,চকরিয়া পৌর মেয়র আলমগীর চৌধুরী। প্রফেসর গিয়াস উদ্দিন,মাতামুহুরী আওয়ামী লীগের সভাপতি মহসিন বাবুল,সাধারণ সম্পাদক নুরে হোছাইন আরিফ। পৌরসভার সভাপতি অধ্যাপক মুসলেহ উদ্দিন মানিক,সাধারণ প্যানেল মেয়র-২ মুজিবুল হক মুজিব। যুবলীগের সভাপতি শহীদুল ইসলাম শহীদ,সাবেক ও বর্তামান ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও কাউন্সিলরসহ প্রায়-১৫-২০জন সিনিয়র নেতা উপস্থিত ছিলেন।

গত চার দিন ধরে সিনিয়র নেতারা দোয়াত কলম তথা ফজলুল করিম সাঈদীর পক্ষে মাঠে-ময়দানে চষে বেড়াচ্ছেন। এতে করে ভোটের হিসাব পাল্টে গেছে। স্থানীয় ভোটাররা মনে করেন ফজলুল করিম সাঈদীর বিজয় নিশ্চিত এখন।

কর্মী সভায় আগত নেতারা বলেন, চকরিয়াবাসীকে আতঙ্ক ও দখল-সন্ত্রাস মুক্ত রাখতে দোয়াত কলম প্রতীকের প্রার্থী ফজলুল করিম সাঈদীকে অবশ্যই জেতাতে হবে। জনগন দোয়াত কলমে বিশাল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ের জন্য অপেক্ষায় আছে।

অন্য দিকে গোড়া মার্কার চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য জাফর আলমও থেমে নেই প্রচারণায়। বিভিন্ন ছোট-বড় নেতা-কর্মীর বাড়ি-ঘরে গিয়ে অভিমান ভাঙ্গতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বিরামহীন। তার পক্ষেও বেশকয়েকজন আ.লীগ নেতা প্রচারণায় নেমেছে। বিশেষ করে উপজেলা আওয়ামী লীগের একাংশের সাধারণ সম্পাদক আবু মূছা, পৌরসভা আওয়ামী লীগের একাংশের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু ও আলমগীর চৌধুরী, জামাল উদ্দিন জয়নাল,পৌরসভার সাবেক সাধারণ সম্পাদক আতিক উদ্দিন চৌধুরীসহ কিছু নেতা।চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের একাংশের সভাপতি ও সাবেক সাংসদ জাফর আলমও জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী।

পাঠকের মতামত: