ঢাকা,শুক্রবার, ১ মার্চ ২০২৪

চট্রগ্রাম সদরঘাটে বান্ধবীর সহযোগিতায় কিশোরীকে গণধর্ষণ, চকরিয়ার মিনু সহ গ্রেপ্তার ৬

নিজস্ব প্রতিবেদক ::

নগরীর সদরঘাটে বান্ধবীর সহযোগিতায় কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগে ছয় জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে পাঁচ জন বন্ধু এবং অপরজন ওই কিশোরীর বান্ধবী। সোমবার (৪ ডিসেম্বর) রাতে নগরীর বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন সদরঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম রব্বানী।

গ্রেপ্তাররা হলেন : ফেনী জেলার দাগনভূঁঞা থানার মো. তামজিদুল ইসলাম রহিম (২৩), কক্সবাজার জেলার চকরিয়া থানার কাঁকারা গ্রামের মো. নজরুল ইসলাম মিনু (৩৬), সদরঘাট থানার পশ্চিম মাদারবাড়ি মোগলটুলী এলাকার ছফুরার বাড়ির মো. নজরুল ইসলাম ফেলন (২০), একই এলাকার মো. রাকিব (২২), কুমিল্লা জেলার ভাঙ্গারা বাজারের রামচন্দ্রপুর এলাকার জুনায়েদ হাসান ওরফে মুন্না (২২) এবং একই এলাকার শারমিন আক্তার (১৬)। তারা সবাই সদরঘাট থানার পশ্চিম মাদারবাড়ি এলাকার বাসিন্দা।

সদরঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম রব্বানী জানান, চট্টগ্রাম নগরীর সদরঘাট থানার পশ্চিম মাদারবাড়ি এলাকায় মায়ের সাথে ডির্ভোস হওয়ার পর থেকে ওই কিশোরী (১৭) দাদা-দাদির সঙ্গে বাবার সংসারে থাকতো। তার বাবা পেশায় রিকশাচালক। কিশোরীর বান্ধবীর সহযোগিতায় ফুসলিয়ে পার্শ্ববর্তী এক দারোয়ানের বাসায় নিয়ে পাঁচ জন বন্ধু তাকে উপর্যুপুরি ধর্ষণ করে।

ওসি গোলাম রব্বানী বলেন, ‘গণধর্ষণের শিকার কিশোরী কোন প্রকার মানসিক প্রতিবন্ধী নয়। তাকে ভয় দেখিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে আসামিরা। পরে বিষয়টি কিশোরীর বাবা জানতে পারলে তিনি থানায় অভিযোগ দায়ে করেন। অভিযোগের পর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে আসামিদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

পাঠকের মতামত: