ঢাকা,মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪

পেকুয়া শহীদ জিয়াউর রহমান উপকুলীয় কলেজ ছাত্রদলের কমিটি ঘোষণাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১

পেকুয়া প্রতিনিধি :: পেকুয়া শহীদ জিয়াউর রহমান উপকুলীয় কলেজ ছাত্রদলের কমিটি ঘোষণাকে কেন্দ্র করে পেকুয়া চৌমুহনী কলেজ গেইটে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় এক গ্রæপের হামলায় পল্লী চিকিৎসক সাহাব উদ্দিন (৬৫)কে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা যায়, গত ১৬ সেপ্টেম্বর পেকুয়া শহীদ জিয়াউর রহমান উপকুলীয় কলেজ শাখার ছাত্রদলকে আরো গতিশীল ও শক্তিশালী করার লক্ষ্যে উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি ফরহাদ হোসেন ও সদস্য সচিব মারুফুল ইসলাম স্বাক্ষরিত ৩১ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটিতে কলেজ শাখার সভাপতি মোহাম্মদ ইয়াছিন, সাধারন সম্পাদক করা হয় মোহাম্মদ আয়াতকে।

রবিবার রাত ৭ টার দিকে নতুন কমিটির কলেজ শাখার সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক ঘোষণা করা হয় সিকদারপাড়ার শাহাদাত হোসাইনকে। তাকে নিয়ে বাতবিতন্ডায় লিপ্ত হয় উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক সাইদী রহমান ও অন্য যুগ্ম আহবায়ক এরশাদ-রাজু গং। এ নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি পরবর্তীতে সংঘর্ষে রুপধারণ করে। দফায় দফায় কয়েকদফা মারামারি ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এতে হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

এ দিকে এরশাদ গং দা নিয়ে হঠাৎ চৌমুহনীতে চেম্বারে রোগী দেখার সময় ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক সাইদী রহমানের পিতা পল্লী চিকিৎসক সাহাব উদ্দিনকে কুপিয়ে জখম করে।

স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। খবর পেয়ে পেকুয়া থানা পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। পুলিশ ধাওয়া দিয়ে উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক এরশাদকে আটক করে।

পেকুয়া থানার ওসি ওমর হায়দার জানান, ঘটনা কি আগে যাচাই বাছাই করতে হবে। তবে তিনি আটকের বিষয়ে অস্বীকার করেন।

পাঠকের মতামত: