ঢাকা,মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪

কুতুবদিয়ায় হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে মরদেহ নিয়ে মিছিল

নিজস্ব প্রতিনিধি, কুতুবদিয়া :
কুতুবদিয়ার সাগর চ্যানেল এলাকায় মাছ ধরতে গিয়ে কথা কাটাকাটির জের ধরে বোটের মাল্লাদের আঘাতে নিহত মাঝি নুর হোসেনের বাড়ীতে স্বজন, প্রতিবেশীরা সকাল থেকেই ভীড় জমিয়েছেন। এসময় কান্নায় ভেঙ্গে পড়ছিলেন নিহত নুর হোসেনের মা আনু বেগমসহ স্বজনরা। বিলাপ করে কান্না করছিলেন তারা। মাঝে মধ্যেই জ্ঞান হারিয়ে ফেলছিলেন নিহতের মা ও স্ত্রী। স্বজনরা শান্তনা দিয়েও ব্যর্থ হচ্ছিলেন। তাদের আহাজারি দেখে উপস্থিতরা চোখের জল ধরে রাখতে পারছিলেন না। উপজেলার আলী আকবর ডেইল ইউনিয়নের আনিচের ডেইল গ্রামের বাড়িতেই এ চিত্র দেখা যায়।

নিহতের ভাই মো. হোছাইন জানান, গত জানুয়ারি মাসেও তার ভাই নুর হোসেনের সাথে বোটের মাল্লাদের সাথে ঝগড়া হয়। ওই বোটের কোম্পানি মোস্তাক আহমেদকে বিষয়টি জানিয়ে বোটটি চালাবে না বলে বাড়ীতে চলে আসেন। পরে, কোম্পানি মোস্তাক আহমেদ ২০ দিন আগে কুতুবদিয়ার পূর্ব আলী আকবর ডেইল জেটিঘাটে বোট নিয়ে আসে এবং নুর হোসেনের পরিবারকে কথা দিয়ে আবারও মাছ শিকারের জন্য সাগরে পাঠায়। এ ঘটনা পরিকল্পিত ভাবে কোম্পানি ও মাল্লারা তার ভাই নুর হোসেনকে হত্যা করেছে বলে জানান।

এদিকে, স্থানীয়রা নুর হোসেনের লাশ কাঁধে নিয়ে হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে মিছিল করে। পরে, বুধবার রাত ৮ টায় তার গ্রামের মসজিদ মাঠে জানাজা নামাজ শেষে স্থানীয় কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

উল্লেখ, গত ২০ দিন আগে কুতুবদিয়া সাগর চ্যানেল এলাকায় মাছ ধরতে যায়। সোমবার দিবাগত রাত ২টার সময় তাদের মধ্যে কাজের বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটির জের ধরে বোটের মাল্লাদের আঘাতে মাঝি নুর হোসেনের মৃত্যু হয়। একপর্যায়ে মরদেহ ও বোট ভাসিয়ে দিয়ে মাল্লারা পালিয়ে যায়। পরে, বোটের কোম্পানি খবর পেয়ে বাঁশখালী থানার মাধ্যমে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

পাঠকের মতামত: