ঢাকা,বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

পরীমনি কাণ্ডে ফাঁসছেন অনেক ভিআইপি খদ্দের !

অনলাইন ডেস্ক :: বিপুল পরিমাণ মাদকসহ র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার নায়িকা পরীমনির ঘটনায় ফাঁসছেন অনেক ভিআইপি খদ্দের। এরই মধ্যে অনেক ভিআইপির নাম পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে সিআইডি।

রবিবার (৮ আগস্ট) দুপুরে সিআইডির সদর দপ্তরে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) অতিরিক্ত ডিআইজি শেখ ওমর ফারুক।

তিনি বলেন, মূল ৬ আসামির বাসায় অভিযান চালানো হয়। কিছু ডিভাইস উদ্ধার করা হয়। ব্ল্যাকমেইলের কিছু কিছু প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে, স্বীকার করছে গ্রেপ্তারকৃতরা।

শেখ ওমর ফারুক বলেন, পরীমনির বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের সঙ্গে গণমাধ্যমে অনেক ব্যাংকের এমডি-চেয়ারম্যানের নাম এসেছে। কিন্তু তারা আদৌ জড়িত কি-না, তা পুঙ্খানুঙ্খুভাবে তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্ত শেষে বিস্তারিত বলা সম্ভব হবে। যাদের সংশ্লিষ্টতা নেই, তারা যেন হয়রানির শিকার না হয় সেজন্য আপাতত ব্যাংকের এমডি-চেয়ারম্যানদের নাম বলতে চাচ্ছি না। তবে তদন্ত শেষে বলা যাবে।

এর আগে গতকাল ওমর ফারুক বলেন, পরীমনি কাণ্ডে যে যতবড় প্রভাবশালী হোক না কেন তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।

চিত্রনায়িকা পরীমনিসহ ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা এবং প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজ আমাদের হেফাজতে রয়েছে। এছাড়া হেলেনা জাহাঙ্গীর, মিশু হাসান এখন আর আমাদের হেফাজতে নেই। তারা অন্য মামলায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছে রিমান্ডে আছে। আশা করছি দ্রুত সময়ের মধ্যে আমরা আসামিদের শনাক্ত করতে সক্ষম হব।

তিনি বলেন, পরীমনিসহ অন্যদের মামলার তদন্তভার আমাদের কাছে এসেছে। মামলাগুলোর তদন্ত কাজ শেষ করতে আমাদের সময় লাগবে।

তিনি আরও বলেন, মামোগুলোর তদন্তের কাজ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে এবং যারা এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট তারা যতই প্রভাবশালী হোক না কেন তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

উল্লেখ্য, গত বুধবার (৪ আগস্ট) রাতে বনানীর বাসায় পৃথক অভিযান চালিয়ে পরীমনি ও রাজকে আটক করে র‍্যাব। অভিযানকালে তাদের বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়। এরপর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পরীমণি ও তার সহযোগী দীপু এবং প্রযোজক রাজ ও তার সহযোগী সবুজ আলীর বিরুদ্ধে বনানী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করে র‌্যাব।

পাঠকের মতামত: