ঢাকা,মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১

চকরিয়ার বাইক রাইডারের লাশ মিলল লামায়

নিজস্ব প্রতিবেদক, চকরিয়া :: কক্সবাজারের চকরিয়া থেকে বান্দরবানে ভাড়ায় যাত্রী নিয়ে যাওয়া নিখোঁজ বাইক রাইডার মো. মুবিনের (১৬) লাশ মিলেছে দুইদিন পর। বান্দরবানের লামার ফাইতং-চিওরথলীতে তার লাশ পাওয়া যায়। লাশটি ছিল ক্ষত-বিক্ষত।
সড়কের পাশে ওই কিশোরের লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা খবর দিলে ফাইতং পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে। এর পর সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি শেষে ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি বান্দরবান সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।
গতকাল শুক্রবার দুপুর বারোটার দিকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। তবে ভাড়ায় চালানো কিশোরের টিভিএস কম্পানির গাড়িটির হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে, বাইকটি ছিনিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যে যাত্রীবেশে দুর্বৃত্তরা এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত করেছে।
নির্মম এই ঘটনার শিকার কিশোর মো. মুবিনের বাড়ি চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নের তিন নম্বর ওয়ার্ডের মাইজপাড়ায়। সে ওই পাড়ার মো. নুরুল আলমের পাঁচ পুত্রের মধ্যে সবার ছোট।
মুবিনের বাবা নুরুল আলম চকরিয়া নিউজকে জানান, তাঁর ছেলে মুবিন বরইতলীর বানিয়ারছড়া স্টেশন থেকে পূর্বদিকের লামার ফাইতং-চিওরথলী সড়কে ভাড়া বাইকে যাত্রী আনা-নেওয়া করে আসছিল। সর্বশেষ গত ১৮ মে যাত্রী নিয়ে চিওরথলী যায় মুবিন। কিন্তু এর পর থেকে সে নিখোঁজ হয়ে পড়ে। অনেক চেষ্টা করেও তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।
তিনি বলেন, ‘আজ (গতকাল) শুক্রবার দুপুরে ফাইতং পুলিশ ফাঁড়ি থেকে খবর আসে তার ছেলের লাশ চিওরথলী এলাকায় সড়কের পাশে পড়ে আছে। এই খবর পাওয়ার পর নিশ্চিত হই লাশটি আমার ছেলের।’
লামা থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, বাইক হাতানোর উদ্দেশ্যে এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়ে থাকতে পারে। তাই পুলিশ সবদিক খেয়াল রেখে হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা করছে।  এ ব্যাপারে পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে মামলা নেওয়া হবে।’

পাঠকের মতামত: