ঢাকা,শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১

রামুতে বঙ্গবন্ধু উৎসবে জাতির পিতার গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস স্মৃতিচারণে এমপি জাফর আলম

এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া :: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে রামুতে কক্সবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সায়মুম সরওয়ার কমল কর্তৃক আয়োজিত সাত দিনব্যাপী ‘বঙ্গবন্ধু উৎসবের উদ্বোধন করা হয়েছে। ‘তোমার জন্ম হয়েছে বলেই আমরা পেয়েছি বাংলাদেশ’ এ শ্লোগানে সোমবার থেকে রামু স্টেডিয়ামে ‘বঙ্গবন্ধু উৎসব’র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। ‘বঙ্গবন্ধু উৎসবে’ প্রথম দিনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, শান্তির পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে সাত দিনের বর্ণাঢ্য আয়োজনের যাত্রা শুরু হয়।

বঙ্গবন্ধু উৎসবের তৃতীয় দিন বুধবার ১৩ জানুয়ারী রামু স্টেডিয়ামে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জাফর আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে স্মৃতিচারণ মুলক বক্তব্য দিয়েছেন কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম। অন্ষ্ঠুানের শুরুতে উৎসব কমিটির পক্ষথেকে সাংসদ আলহাজ জাফর আলকে সংবর্ধিত করা হয়।

স্মৃতিচারণ সভায় এমপি জাফর আলম বলেছেন, স্বাধীনতার মহানায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাতা। বাঙ্গালী জাতির জনক। তাঁর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দীর্ঘ সংগ্রামের ফসল আজকের বাংলাদেশ। টুঙ্গিপাড়ার শেখ মুজিব এই দেশে জন্মেছিলেন বলেই আজ বাংলাদেশ উন্নতশীল দেশের কাতারে। তাঁর সুযোগ্য কন্যা দেশরত্ম শেখ হাসিনার সুদক্ষ নেতৃত্বে এগিয়ে যাচ্ছে এই দেশ।

তিনি বলেন, পাকিস্তানীদের শোষনের কবল থেকে বাংলাদেশের মানুষকে একটি জাতীয় পতাকা এবং স্বাধীন রাষ্ট্র উপহার দিয়েছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু। স্বাধীনতার পর মাত্র সাড়ে তিন বছর তিনি দেশ শাসনের সুযোগ পেয়েছিলেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট এইদেশের ভেতরে ঘাপতি মেরে থাকা পাকিস্তানীদের দোসরা জাতির পিতাকে স্ব-পরিবারে হত্যা করে জাতিকে অভিভাবক শুন্য করে দিয়েছিলো।

এমপি জাফর আলম সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমলের ভুয়সী প্রশংসা করে বলেন, জাতির পিতার স্মৃতিকে সর্বসাধারণের কাছে তুলে ধরতে এইধরণের উৎসবের আয়োজন নিসন্দেহে নতুন প্রজন্মকে উজ্জেবিত করবে। বঙ্গবন্ধুর জীবনের গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস দেশবাসি জানতে পারবে।

আয়োজকেরা জানান, ৭ দিনের বঙ্গবন্ধু উৎসবের মঞ্চে প্রতিদিন বিকেল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত থাকবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনীভিত্তিক আলোচনা, বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের ছড়া-কবিতা পাঠ, গান, নাট্যানুষ্ঠানসহ নানান সাংস্কৃতিক আয়োজন। এছাড়াও উৎসবে বঙ্গবন্ধুর জীবনের গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে প্রতিদিন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনপঞ্জী উপস্থাপন করা হবে। ##

 

পাঠকের মতামত: