ঢাকা,বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০

ফাইতংয়ে মজুরির টাকা দিতে ডেকে নিয়ে

চকরিয়ার ইলেক্ট্রিক মেস্ত্রীকে ফাইতংয়ে পিটিয়ে হত্যা!

নিজস্ব প্রতিবেদক, চকরিয়া :: লামা উপজেলার ফাইতংয়ে মজুরির টাকা দেয়ার কথায় ডেকে নিয়ে চকরিয়া পল্লীবিদ্যুতের এক ইলেক্ট্রিক মেস্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় ঘটনাটি ঘটলেও শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাত ২টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন ওই ব্যক্তি।

নিহতের নাম মো: হাবিব উল্লাহ (৩৮)। তাঁর বাড়ি চকরিয়া উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের পুলেরছড়া গ্রামে। তিনি ওই এলাকার মৃত আবদুল আজিজের ছেলে। বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কাকারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত ওসমান।

নিহতের ভাতিজা মোহাম্মদ মানিক জানান, হাবিব উল্লাহ পল্লী বিদ্যুত সমিতি চকরিয়া জোনাল অফিসের অধীন লামা উপজেলার ফাইতং ও চকরিয়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ওয়ারিং মেস্ত্রী হিসেবে কাজ করতো। ঘটনারদিন বৃস্পতিবার বিকালে ফাইতং ইউনিয়নের মগনামা পাড়া এলাকার আবু তাহেরের ছেলে আবুল কালামের বাড়িতে পল্লী বিদ্যুতের ওয়ারিং করতে যান তিনি।

কাজ শেষে বাড়ি ফেরার সময় সন্ধ্যা ৭টার দিকে মজুরি চাইলে উল্টো হাবিব উল্লাহর সঙ্গে তর্কে জড়ায় বাড়ির গৃহকর্তা আবুল কালাম। ঘটনার এক পর্যায়ে হাবিব উল্লাহকে গাছের বাটাম দিয়ে মাথায় আঘাত করে কালাম। এসময় তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়লে তাৎক্ষনিক আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাকে চকরিয়া উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে যান।

নিহতের ভাতিজা আরও বলেন, ওইসময় হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে প্রথমে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল প্রেরণ করেন। তবে সেখানে অবস্থার অবনতি ঘটলে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাত ২টায় মারা যান তিনি।

জানতে চাইলে লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান বলেন, ইলেক্ট্রিক মেস্ত্রী মারা যাওয়ার খবর পেয়ে গতকাল সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ঘটনার বিষয়ে অভিযোগ প্রাপ্তি সাপেক্ষে মামলা নেওয়া হবে। অবশ্য ঘটনাটি জানার পর থেকে অভিযুক্তকে গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান চলছে।

পাঠকের মতামত: