ঢাকা,রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০

কক্সবাজারে এনজিওর ৪ কর্মকর্তা আটক চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণা

কক্সবাজার প্রতিনিধি :: কক্সবাজারে চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণার অভিযোগে গোপালগঞ্জ ভিত্তিক এনজিও বিএমএম ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যানসহ ৪জন কর্মকর্তাকে আটক করেছে পুলিশ।  শুক্রবার দুপুরে কক্সবাজার শহরের খুরুস্কুল রাস্তার মাথা এলাকার শহীদ তিতুমীর ইনস্টিটিউট পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে তাদের আটক করা হয়। এসময় পরীক্ষার খাতা, প্রশ্নপত্রসহ আনুষঙ্গিক সরঞ্জামও জব্দ করা হয়। আটককৃতরা হলেন-কথিত প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান এস এম মাসুম বিল্লাহ, ফিন্যান্স অফিসার শাহাদাত হোসেন খান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক জালাল উদ্দিন ও মোহাম্মদ ইউনুস।
গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ার বিএমএম ফাউন্ডেশন নামের প্রতিষ্ঠানে তিন পদে ১৪জনকে নিয়োগ দেয়ার নামে শুক্রবার প্রায় ১২০০ জনকে পরীক্ষায় আহ্বান করা হয়। এসএমএস এর মাধ্যমে পরীক্ষার তারিখ, সময় ও স্থান প্রার্থীদের আগেই জানিয়ে দেয়া হয়। কিন্তু শুক্রবার সকাল ১০টায়
নির্ধারিত কেন্দ্রে পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও পরীক্ষা শুরুর আগেই জনপ্রতি ৩০০ টাকা করে রেজিস্ট্রেশন ফি দাবি করে কথিত নিয়োগদাতারা। অথচ পরীক্ষার আগে কোন আবেদনকারীকে টাকার বিষয়ে জানানো হয়নি বলে অভিযোগ পরীক্ষার্থীদের। মূলতঃ টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে ফুঁসে ওঠে পরীক্ষার্থীরা। এসময় নানা শ্লোগান দিয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রের ভেতরে আটকে রাখা হয় এনজিও কর্তাদের। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে অভিযুক্ত এনজিও কর্মকর্তাদের আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
রাঙামাটি থেকে আসা বিধান চাকমা, ম্যানশন চাকমা, ইচ্ছে চাকমা ও চট্টগ্রামের বাঁশখালী থেকে আসা রেজাউল করিম জানান, দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে অনেক টাকা খরচ করে প্রায় ১২শ পরীক্ষা হাজির হলেও পরীক্ষার আগেই তাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা দাবি করা হয়। আর এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে পরীক্ষার্থীরা।
এ প্রসঙ্গে কক্সবাজার সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. খায়েরুজ্জামান জানান, পরীক্ষার্থীদের অভিযোগের ভিত্তিতে সদর মডেল থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক প্রদীপ কুমারের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে। পরে নিয়োগ পরীক্ষার বিষয়ে জানতে চাইলে বিএমএম ফাউন্ডেশনের কর্তারা তাদের স্বপক্ষে কোন ডকুমেন্টস দেখাতে পারেনি। এবিষয়ে খোঁজ-খবর নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

পাঠকের মতামত: