Home » চকরিয়া » চকরিয়ায় ছোটভাইয়ের স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে বড়ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা

চকরিয়ায় ছোটভাইয়ের স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে বড়ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

ধর্ষণএম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া ::

চকরিয়া উপজেলার কোর্ট সেন্টার এলাকায় বাড়িতে ঢুকে ছোট ভাইয়ের স্ত্রীকে ধর্ষণ করার চ্যাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠেছে স্বামীর আপন বড়ভাইয়ের বিরুদ্ধে। পারিবারিক বিরোধের জের ধরে বড়ভাইকে হয়রাণির করার জন্য আদালতে ধর্ষণের অভিযোগে ছোট ভাইয়ের স্ত্রী বাদি হয়ে এই মামলাটি দায়ের করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় এলাকার লোকজনের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যাল আদালতের নির্দেশে গত গত ৪ ফেব্রুয়ারী চকরিয়া থানার ওসি মো.জহিরুল ইসলাম খাঁন মামলাটি গ্রহন করেন। যার নম্বর-০৪, ধারা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, ২০০০এর ৯(১)। বর্তমানে থানার এসআই মো.আনোয়ার হোসেন মামলাটি তদন্ত করছেন।

মামলার আর্জিতে বাদি চকরিয়া পৌরসভার ৬নম্বর ওয়ার্ডের ওয়ার্ডের কোট সেন্টার এলাকার নাজেম উদ্দিনের স্ত্রী নিশাত সুলতানা (২০) দাবি করেন, তার স্বামী চাকুরীর সুবাদে চট্টগ্রামে থাকেন। তিনি ছয়মাস বয়সের ছেলেকে নিয়ে স্বামীর বাড়িতে একা থাকেন। বাদি অভিযোগে দাবি করেন, স্বামীর বড় ভাই সাহাব উদ্দিন চলতি বছরের ১৯জানুয়ারী রাত আনুমানিক সাড়ে ৮টার দিকে বাড়ির দরজা সুকৌশলে খুলে তার রুমে ঢুকে টানা হেঁচড়া করে জোরপুর্বক তাকে ধর্ষন করে। এ ঘটনায় তিনি বাদি হয়ে ২১ জানুয়ারী আদালতে সাহাব উদ্দিনকে একমাত্র আসামি করে মামলাটি করেন। এরপর আদালতের নির্দেশে চকরিয়া থানা পুলিশ মামলাটি নথিভুক্ত করেন।

স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, মামলার বাদি ভিকটিম নিশাত সুলতানার স্বামী নাজেম উদ্দিন ও মামলার আসামি সাহাব উদ্দিন আপন সহোদার। কোর্ট সেন্টার এলাকার সফর মুল্লুকের ছেলে তাঁরা। কয়েকজন ভাই দীর্ঘদিন ধরে বিদেশে রয়েছে। মুলত পারিবারিকভাবে বিরোধের জের ধরে ভাইকে হয়রাণি করার জন্য ছোট ভাইয়ের স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ তুলে এ মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকার লোকজনের মাঝেও ক্ষোভ বিরাজ করছে।

মামলায় অভিযুক্ত আসামি সাহাব উদ্দিন ও তার স্বজনরা জানান, পরিবারে অনেক ভাই বিদেশে রয়েছে। তাদের পাঠানো টাকায় বিপুল পরিমাণ জায়গা-জমি ক্রয় করা হয়েছে। মুলত ছোট ভাই নাজেম উদ্দিন দেশে থাকাবস্থায় বিপুল টাকা হাতিয়ে নেয় ভাইদের। এ নিয়ে বিরোধের সৃষ্টি হয়। সাহাব উদ্দিন অভিযোগ করেন, তাকে হয়রানী করার জন্যই এ ধর্ষণ অভিযোগে সাজানো মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। এব্যাপারে পুলিশ প্রশাসন ও আদালতের নিরপেক্ষ তদন্তের দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী সাহাব উদ্দিন। #

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

প্রবারণা পূর্ণিমাকে ঘিরে লামায় ব্যাপক প্রস্তুতি

It's only fair to share...000মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি ::   মঙ্গলবার থেকে আতশবাজি, বর্ণিল ...