Home » Uncategorized » টেকনাফে আতংকে স্বর্ণলংকার ও জুয়েলারী ব্যবসায়ীরা

টেকনাফে আতংকে স্বর্ণলংকার ও জুয়েলারী ব্যবসায়ীরা

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

s-1-300x125আমান উল্লাহ আমান, টেকনাফ :::

টেকনাফের স্বর্ণলংকার ও জুয়েলারী ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। উদ্বেগ ও উৎকন্ঠার রয়েছে শতশত পরিবার। গত শনিবার টেকনাফ পৌরসভার স্বর্ণকার দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মং মং সে’র নিজ বাড়ী তথা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বিজিবিসহ আইনশৃংখলা বাহিনী ঘেরাও করে ১৬ ঘন্টাব্যাপী অভিযান চালিয়ে স্বর্ণলংকার ও নগদ টাকা উদ্ধার করে। এঘটনায় টেকনাফ উপজেলা সকল স্বর্ণলংকার ও জুয়েলারী দোকানগুলো অঘোষিতভাবে বন্ধ রেখে নিরব প্রতিবাদ করছে ব্যবসায়ীরা। এতে ভোগান্তি ও হয়রানীর শিকার হয়ে ফেরত যাচ্ছে গ্রাহকরা। এদিকে টেকনাফ স্বর্ণকার দোকান মালিক সমিতির পক্ষ থেকে ৭ মার্চ সোমবার বিকালে সাংবাদ সম্মেলন করে সমিতির সাধারন সম্পাদক অং চেন থোই জানান, বৃটিশ আমল থেকে টেকনাফের রাখাইন স্বর্ণকারেরা বিশ্বস্থতা ও যতেœর সাথে স্বর্ণলংকার তৈরী করে এতদাঞ্চলের মানুষের স্বর্ণলংকারের চাহিদা মিটিয়ে আসছে। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখজনক হলেও সত্যি যে, গত ৫ মার্চ ভোর থেকে সমিতির সভাপতি মং মং সে’র নিজ বাড়ী তথা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ‘মং মং সে স্বর্ণলংকার’ ঘেরাও করিয়া আইনশৃংখলা বাহিনী অভিযান পরিচালনা করে। এসময় তার বাড়ীতে কাউকে প্রবেশ ও বাহির হতে দেয় নাই। পরবর্তীতে সন্ধ্যা ৭ টায় দোকানে থাকা গ্রাহকদের অর্ডারের তৈরী ও তৈরীকৃত স্বর্ণলংকার, স্বর্ণ উপাদান, স্বর্ণ উপকরণ জব্দ করে। এমনকি কারীগরদের টেবিলে তৈরীকৃত স্বর্ণলংকার জব্দ ছাড়াও তাদের পরিধেয় স্বর্ণলংকার চেইন ও আংটি পর্যন্ত খুলে নেওয়া হয়। তিনি আরো জানান, তাহারা সংখ্যালঘু সম্প্রদায় বিধায় এ ঘটনায় তাদের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। জেলা প্রশাসক ও পৌরসভার লাইসেন্স এবং ভ্যাট ও আয়কর প্রদান করে দীর্ঘকাল ধরে বৈধভাবে ব্যবসা করে আসছেন । উক্ত ঘটনার পর নিরব প্রতিবাদ হিসেবে ৬ মার্চ হইতে টেকনাফের সমস্ত জুয়েলারী ও স্বর্ণলংকারের দোকান বন্ধ রাখা হয়। এতে স্বর্ণলংকারের অর্ডার দেওয়া গ্রাহকগণ অলংকার ডেলিভারি না পেয়ে উদ্বেগ উৎকন্ঠায় রয়েছে। ফলে গ্রাহকদের অসুবিধার কথা চিন্তা করে ৮ মার্চ থেকে যথারীতি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহন করেন বলেও জানান। এসময় তারা গ্রাহকদের সাময়িক অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশও করেন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো উল্লেখ করেন, গত ৫ মার্চ সংঘটিত ঘটনার সুষ্টু ও নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে আইনশৃংখলা বাহিনী কর্তৃক জব্দকৃত গ্রাহকদের স্বর্ণলংকার ফেরত প্রদান ও ভবিষ্যতে তাদের জীবন-জীবিকায়নের একমাত্র মাধ্যম স্বর্ণলংকার তৈরী ও জুয়েলারী ব্যবসা নিরাপদে চালিয়ে যেতে সাংবাদিকদের মাধ্যমে প্রশাসন ও সরকারের সহযোগীতা কামনা করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন সমিতির প্রধান উপদেষ্টা মং ছেন এ, সুইক্য হ্লা, সহ সাধারন সম্পাদক নিমং, সহ সভাপতি থোই অং সুওয়ে, কোষাধ্যক্ষ মং টিন ওয়ান, সাংগঠনিক সম্পাদক ভাবু, মং খিং ওয়ান, সদস্য মং খিং খেন, ছেন মি থুই, কারিগর সমিতির সভাপতি সুইখ্যা ছেন, সাধারন সম্পাদক থুই মাং খাই, হোয়াইক্যং-খারাংখালী মৌলভী বাজার স্বর্ণলংকার সমিতির সভাপতি ক্য ছা ছিং, সাধারন সম্পাদক উসুই মং, জুয়েলারী সমিতির সভাপতি প্রনব ধর, সাধারন সম্পাদক সজল ধর প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে আরেকটি যুদ্ধে জয়ী হয়েছি

It's only fair to share...21400কক্সবাজার প্রতিনিধি :: দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া ...