Home » কক্সবাজার » চকরিয়া-পেকুয়ায় ৪৯ পূজাম-পে জেলা পরিষদের অনুদান বিতরণ

চকরিয়া-পেকুয়ায় ৪৯ পূজাম-পে জেলা পরিষদের অনুদান বিতরণ

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া ::

কক্সবাজার জেলা পরিষদের উদ্যোগে চকরিয়া ও পেকুয়া উপজেলার ৪৯ টি পূজা ম-পে এক লাখ ৪৭ হাজার টাকা অনুদান দেয়া হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার চকরিয়া উপজেলার হারবাং, বরইতলী ইউনিয়নে এবং সর্বশেষ পেকুয়া উপজেলার বিভিন্ন পূজা ম-প পরিচালনা কমিটির নেতাদের কাছে অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়েছে। এ উপলক্ষে মঙ্গলবার সকালে চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জালাল আহমদ সিকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে চেক বিতরণ করেন কক্সবাজার জেলা পরিষদের সদস্য এবং জেলা আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ সম্পাদক চট্টগ্রামস্থ চকরিয়া সমিতির সভাপতি লায়ন আলহাজ কমরউদ্দিন আহমদ। অনুষ্ঠানে উদ্বোধক ছিলেন কক্সবাজার জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আসমা উল হোসনা। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের নারী সদস্য রেহেনা খানম রাহু। দুপুরে বিতরণ করা হয় হারবাং ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে ইউপি চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলামের সভাপতিত্বে পূজা ম-প পরিচালনা কমিটির নেতাদের মাঝে অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন পরিষদের সচিব সালাহউদ্দিন, ইউপি মেম্বার তোফায়েল আহমদ, আবদুস সাত্তার, মোহাম্মদ ইলিয়াছ

বিতরণ অনুষ্ঠানে জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আসমা উল হোসনা বলেন, চকরিয়া উপজেলায় ৪৩টি ও পেকুয়া উপজেলার ছয়টি পূজা ম-পে তিন হাজার টাকা করে অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়েছে। জেলার অন্য ছয় উপজেলায় আরও ৯৫টি পূজা ম-পে একইভাবে তিন হাজার টাকা করে অনুদানের চেক হস্তান্তর করা হচ্ছে।

বরইতলী ইউনিয়নের বিবিরখিল পহরচাঁদা দুর্গা কালি মন্দির পূজা ম-প কমিটির সভাপতি দুর্গা চরণ দাস বলেন, জেলা পরিষদ প্রথমবারের মতো প্রতিটি ম-পে অনুদান দিচ্ছে। এজন্য আমরা খুব খুশি। সরকারের অন্যান্য প্রতিষ্ঠানও যদি এভাবে এগিয়ে আসে, তাহলে পূজা আর্চনায় কোনো প্রকার বিঘœ ঘটবে না।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি জেলা পরিষদের সদস্য এবং কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ সম্পাদক লায়ন কমরউদ্দিন আহমদ বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বে বর্তমান সরকার দেশের অগ্রগতি উন্নয়ন ও জনগনের কল্যানে নিরলশভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। সরকার প্রধানের সুদক্ষ ও বিচক্ষন নেতৃত্বের কারনে তলাবিহীন ঝুড়ির বাংলাদেশ আজ উন্নতশীল দেশের কাতারে। উন্নয়নের পাশাপাশি সরকার বাংলাদেশকে সম্প্রীতির দেশ গড়তে সফল হয়েছে। জনগনের মাঝে সেতুবন্ধনের মাধ্যমে দেশের সকল ধর্ম-বর্ণের মানুষের মধ্যে সমান অধিকার নিশ্চিত করেছে।

তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার ঘোষনা, ধর্ম যার যার, বাংলাদেশ সবার। তিনি এই নীতিতে বিশ^াসী বলেই আজ সফলভাবে এগিয়ে যাচ্ছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশ। বদলে যাচ্ছে দেশের দৃশ্যপট। আমাদেরকে সরকারের সফল এই অর্জন অব্যাহত রাখতে হবে। সেইজন্য আগামী নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারকে রাষ্ট্র ক্ষমতায় আনতে হবে। #

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

আলীকদমে পাহাড় কেটে ইটভাটা, পুঁড়ছে বনের কাঠ

It's only fair to share...37500মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, লামা :: বান্দরবানের আলীকদম উপজেলায় নির্বিচারে পাহাড় কেটে ...

error: Content is protected !!