Home » পেকুয়া » পুলিশের হাতে ইয়াবাসহ আটক যুবলীগ নেতার শ্যালক

পুলিশের হাতে ইয়াবাসহ আটক যুবলীগ নেতার শ্যালক

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page
নাজিম উদ্দিন, পেকুয়া ::
পেকুয়ার যুবলীগ নেতার শ্যালক দুলালকে ৩’শ পিচ ইয়াবাসহ আটক করেছে বাঁশখালী থানা পুলিশ। (২০জুলাই) শুক্রবার রাত ৮টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ আনোয়ারা-বাঁশখালী-পেকুয়া সড়কের প্রেমবাজার পয়েন্ট থেকে তাকে আটক করে। দুলাল পেকুয়া উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের মটকাভাঙ্গা এলাকার রমিজ আহমদের ছেলে। যুবলীগ নেতা হারুন অর রশিদের আপন শ্যালক। জানা গেছে ওইদিন রাতে সিএনজি নিয়ে দুলাল বিপুল পরিমান ইয়াবা হাত বদল করতে চট্টগ্রামে যাচ্ছিল। বাঁশখালী প্রেমবাজার পয়েন্ট পুলিশ সিএনজি গাড়িটি থানায়। এসময় তিনি গাড়ি থেকে নেমে পালানোর চেষ্টা করে। পুলিশ ধাওয়া দিয়ে ৩’শ পিচ ইয়াবাসহ তাকে আটক করে। বাঁশখালী থানা পুলিশসুত্র জানায় সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে। তাকে চট্টগ্রাম কারাগারে প্রেরন করা হয়েছে। স্থানীয়রা জানায় দুলাল একজন চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ী। দীর্ঘদিন ধরে তিনি ইয়াবা বিকিকিনি করে আসছিল। যুবলীগ নেতা হারুনের শ্যালক দুলাল। দুলালের নেতৃত্বে কয়েকজন সিন্ডিকেট করে বীরদর্পে এ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। যুবলীগ নেতা হারুন শেল্টার দাতা। ইয়াবা বিকিকিনির একটি লভ্যাংশ যুবলীগ নেতার পকেটেও যায় বলে স্থানীয়রা জানায়। দুলালের বড় ভাই মো:নুরুল আলম প্রকাশ আলমও ইয়াবা ব্যবসায় পুর্ব থেকে জড়িত রয়েছে বলে এলাকায় জনশ্রুতি রয়েছে। আলম যুবদলের রাজনীতির সাথে জড়িত। এদিকে দুলাল ইয়াবাসহ আটক হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে শুরু হয় দৌড়ঝাপ। দুলালকে ছাড়িয়ে নিতে কয়েকজন যুবলীগ নেতা মোটাংকের মিশন নিয়ে থানা পুলিশের কাছে তদবির চালায়। পুলিশ তদবিরবাজদের নাজেহাল করে থানা থেকে বের করে দেয় বলে নির্ভরযোগ্য সুত্র নিশ্চিত করেছেন।
 স্থানীয়রা জানায় যুবলীগ নেতা হারুন কয়েক দিন আগে তার ফেসবুক ওয়াল থেকে পেকুয়া থানার ওসি জহিরুল ইসলামকে নিয়ে একটি সাফাই স্ট্যাটাস দেন। এনিয়ে সাধারন নেতাকর্মী ও স্থানীয়দের মধ্যে বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। একজন বিতর্কিত ওসিকে নিয়ে সাফাই স্ট্যাটাস দেয়ায় পেকুয়ায় সর্বত্রে নিন্দার ঝড় উঠে। ওই স্ট্যাটাস নিয়ে অনেকে বিরুপ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। স্থানীয়রা জানায় যুবলীগ নেতা হারুন ওই স্ট্যাটাস দিয়ে ওসি’র আস্থাভাজন হওয়ার চেষ্টা করছে। শ্যালক ইয়াবা ব্যবসায়ী। দুলাভাই ওসি’র আস্থাভাজন। এ সুযোগটা কাজে লাগাতে চায় ইয়াবা সিন্ডিকেট এমনটা জানালেন স্থানীয়রা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রাফিয়া আলম জেবা : অদম্য এক পিইসি পরীক্ষার্থী লিখছে পা দিয়ে

It's only fair to share...32900কক্সবাজার প্রতিনিধি ::   কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাহ ইউনিয়নের ভোমরিয়া ঘোনা সরকারি ...

error: Content is protected !!