ঢাকা,সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩

বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে বাহাদুরের মৃত্যুর দুইদিন পরে মারা গেছে হাতি রঙ্গবালা

 

এম জিয়াবুল হক, চকরিয়া ::
চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারাস্থ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সাফারি পার্কে সৈকত বাহাদুরের মৃত্যুর দুইদিন পর এবার মারা গেছেন রঙ্গবালা নামক আরেকটি নারী হাতি। হাতিরটির বয়স আনুমানিক ৮৬ বছর। গতকাল বুধবার বিকাল সাড়ে পাঁচটার দিকে ডুলাহাজারাস্থ বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের বেষ্টনীতে বার্ধক্য জনিত রোগে ওই হাতির মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন পার্কের তত্ত্বাবধায়ক বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ চট্টগ্রামের বিভাগীয় বনকর্মকর্তা ( ডিএফও) মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম চৌধুরী।
এদিকে সাফারি পার্ক কর্তৃপক্ষ নারী হাতিটি বার্ধক্যজনিত রোগ মৃত্যু হয়েছে দাবি করলেও দুইদিনের ব্যবধানে দুইটি হাতির মৃত্যু নিয়ে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে।

ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল ইসলাম বলেন, জানায়, গতকাল বুধবার বিকাল সাড়ে পাঁচটার দিকে রঙ্গবালা নামের একটি মাদি হাতির মৃত্যু হয়েছে। ওই হাতিটি দীর্ঘ আট মাস ধরে অসুস্থ ছিলো। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারী বিশ^বিদ্যালয়ের অধ্যাপক বিবেক চন্দ্র সুত্রধরের তত্বাবধানে ওই হাতিটি চিকিৎসাধীন ছিলো। গত পাঁচমাস আগে অধ্যাপক বিবেক চন্দ্র সুত্ধরকে প্রধান করে হাতিটির চিকিৎসার জন্য পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়.। সেই থেকে ওই মেডিকেল বোর্ড হাতি রঙ্গমালার চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন।

তিনি বলেন, গতকাল সন্ধার দিকে আইনী প্রক্রিয়া পরবর্তী ময়না তদন্ত শেষে সাফারি পার্কের ভেতরে রঙ্গমালার মরদেহ মাটি চাপা দেওয়া হয়েছে।

ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের তত্ত্বাবধায়ক ও বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ চট্টগ্রামের বিভাগীয় বনকর্মকর্তা মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, বুধবার মারা যাওয়া হাতি রঙ্গমালা আটমাস ধরে বার্ধক্যজনিত রোগে আক্রান্ত ছিলেন। তার বয়স হয়েছে ৮৬ বছর। সাধারণত একটি হাতির গড় আয়ু ৮৫ থেকে ৮৬ বছর হয়ে থাকে। তারপরও আমরা রঙ্গমালাকে নিবিড় তদারকিতে রেখেছিলাম।

তিনি আরও বলেন, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অথ্যাপক বিবেক চন্দ্র সুত্রধরের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যদের মেডিকেল বোর্ড নিয়মিত হাতি রঙ্গমালার চিকিৎসা দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত : দুইদিন আগে সোমবার ২৮ নভেম্বর সাফারি পার্কে খাবার (কলাগাছ) আহণরত অবস্থায় হঠাৎ মাটিয়ে লুটিয়ে পড়ে মারা যান অপর হাতি সৈকত বাহাদুর। খবর পেয়ে চকরিয়া উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা সমর রঞ্জন বড়ুয়া ও পার্কের ভেটেরিনারী সার্জন হাতেম সাজ্জাদ জুলকার নাইন হাতিটির শরীর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন। ধারণা করা হচ্ছে সৈকত বাহাদুর হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছে।

পাঠকের মতামত: