ঢাকা,শুক্রবার, ৭ মে ২০২১

বাতাসে অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার দাবি তরুণীর

অনলাইন ডেস্ক ::  অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় স্বাভাবিক নিয়মকে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে ইন্দোনেশিয়ার এক তরুণী দাবি করেছেন, বাতাসেরই অন্তঃসত্ত্বা হয়েছেন তিনি। শুধু তাই নয়, প্রসবের মাত্র এক ঘণ্টা আগে নাকি টের পেয়েছেন তিনি গর্ভবতী।
তরুণী এমন দাবি করার পর শুরু হয়েছে চাঞ্চল্য। এমন অদ্ভুত দাবি শুনে স্বাভাবিকভাবেই হকচকিয়ে গিয়েছে প্রশাসন। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

জানা যায়, গত সপ্তাহেই একটি কন্যা শিশুর জন্ম দিয়েছেন ২৫ বছর বয়সী তরুণী সিতি জাইনা। তিনি দক্ষিণ ইন্দোনেশিয়ার পশ্চিম জাভা প্রদেশের বাসিন্দা। জাইনার ও তার সন্তান দুজনেই সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন। শিশুটির ওজন ২.৯ কেজি। এমন অদ্ভুত উপায়ে গর্ভধারণের কথা শুনে তাজ্জব বনে গেছেন সবাই।

ঘটনার বিষয়ে স্থানীয় একটি সংবাদমাধ্যমকে ওই তরুণী জানান, ঘটনার সময় তিনি নিজের ঘরেই ছিলেন। এই সময় একটা হাওয়া যেন গোটা বাড়িটাকে ঘিরে ধরে। আর ১৫ মিনিটের মধ্যেই তার পেটে ব্যথা শুরু হয়। দ্রুত ব্যথাটা বাড়তে থাকে। কালক্ষেপণ না করে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় কাছের একটি হাসপাতালে। সেখানেই সন্তানের জন্ম দেন তিনি।

জাইনার ভাষ্যে, তিনি প্রার্থনার পর বিকেলে শুয়ে ছিলেন। তখনই আচমকা ওই হাওয়া ঢুকে পড়ে ঘরের মধ্যে। তিনি টের পান হাওয়া এসে তার প্রজনন অঙ্গের ভিতরে প্রবেশ করেছে।

এ ঘটনার পরে জাইনার বাড়িতে আসে পুলিশ। এক পুলিশ মুখপাত্র বলেন, ওই নারীর অস্বাভাবিক উপায়ে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ার খবর ছড়িয়ে পড়ায় তারা তদন্তে এসেছেন। এই ধরনের আজগুবি দাবি থেকে কোনো গুজব ছড়িয়ে পড়ুক, এটা তারা চান না।

জাইনার আগেও একটি সন্তান রয়েছে। তার স্বামীর সঙ্গে চার মাস আগে ছাড়াছাড়ি হয়। তবে, যাই হোক তার এ দাবির পর পুরো এলাকায় ছড়িয়ে পড়ছে নানা ধরনের গুজব। তাকে ও তার সন্তানকে একনজর দেখতে হুড়মুড়ি খেয়ে পড়ছেন মানুষ।

বিষয়টি সম্পর্কে এখনো কিছু স্পষ্ট করে না জানা গেলেও ধারণা করা হচ্ছে এটা হয়তো বা ‘ক্রিপটিক প্রেগন্যান্সি’ হতে পারে। এই ধরনের গর্ভধারণের ক্ষেত্রে মহিলারা বুঝতেই পারেন না তারা অন্তঃসত্ত্বা। একেবারে প্রসব বেদনা উঠলে তখন বিষয়টি ধরা পড়ে।

 

 

পাঠকের মতামত: