ঢাকা,শুক্রবার, ১ মার্চ ২০২৪

বিভাগীয় বন কর্মকর্তার আদেশ উপেক্ষিত;

চকরিয়ার ডুলাহাজারায় বিতর্কিত হেডম্যানের মাধ্যমে বিক্রি হচ্ছে গাছ ও বনভূমি

স্টাফ রিপোর্টার, চকরিয়া :: কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের আওতাধীন চকরিয়ার ডুলাহাজারা বন বিটের হেডম্যান দলিল আহমদের বিরুদ্ধে বনভূমি দখল করে জায়গা বিক্রি, গাছ কর্তনসহ নানান অভিযোগের প্রেক্ষিতে হেডম্যান এর পদ থেকে তাকে অপসারণ পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের আদেশ উপেক্ষা করে উল্টো তাকে স্বপদে বহাল রেখে পুরস্কৃত করার অভিযোগ উঠেছে রেঞ্জ ও বিট কর্মকর্তার বিরুদ্ধে।

অভিযোগে জানা গেছে, কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের আওতাধীন চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারা রেঞ্জ ও বন বিটে বিগত ২০২১ সালে ২৮ জইন্যা গ্রুপের হেডম্যান নির্বাচিত হন মৃত ছিদ্দিক আহমদের পুত্র দলিল আহমদ।

হেডম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে সংরক্ষিত বনাঞ্চলের জায়গা বিক্রি, জবর দখল, গাছ চোরদের সাথে গোপন আতাঁত করে বনের গাছ বিক্রি করে অল্প সময়ে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ বনে যায় সে। তার এসব অপরাধ-অপকর্মের কেউ প্রতিবাদ করলে তাদেরকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ, নির্যাতনসহ মিথ্যা মামলার আসামী হতে হয়।

এসব বিষয় নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দা মৃত মনিরুজ্জমানের পুত্র গিয়াস উদ্দিন বাদী হয়ে বিভাগীয় বন কর্মকর্তা, কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগ বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগেে সত্যতা যাচাইয়ের জন্য সহকারী বন সংরক্ষক, ফুলছড়িকে তদন্তের দায়িত্ব দিলে অভিযোগের সত্যতা রয়েছে মর্মে দলিল আহমদের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দেন।

এর প্রেক্ষিতে বিভাগীয় বন কর্মকর্তা, কক্সবাজার গত ১৬ নভেম্বর’ ২৩ ইং স্বাক্ষরিত এক আদেশ (স্মারক নং- ২২.০১.২২০০.৭৭১.৩২. ০০১.২৩) মূলে উক্ত দলিল আহমদকে বনবিটের হেডম্যান এর পদ থেকে অপসারণ করে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ সহ কি কি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে, তা বিভাগীয় বন কর্মকর্তাকে জানানোর জন্য নির্দেশ প্রদান করেন।

কিন্তু ফাঁসিয়াখালী রেঞ্জ রেঞ্জ কর্মকর্তা মেহেরাজ উদ্দিন ও ডুলাহাজারা বনবিট কর্মকর্তা আবুল কালাম তা উপেক্ষা করে ৭ ডিসেম্বর ‘২৩ ইং উল্টো তাকে তিরস্কারের বদলে পুরস্কৃত করে আগামী ০১ (এক) বছর অর্থাৎ ২০২৪ সালের জন্য পূণরায় হেডম্যানের দায়িত্ব প্রদান করেন। দলিল আহমদকে হেডম্যান নিয়োগের খবরটি ৮ ডিসেম্বর স্থানীয় পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

এ খবরটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে বনাঞ্চল রক্ষাকারী ভিলেজার, বসবাসকারী লোকজনসহ সকলের মাঝে ক্ষোভ ও আতংক দেখা দিয়েছে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে ফাঁসিয়াখালী রেঞ্জ রেঞ্জ কর্মকর্তা মেহেরাজ উদ্দিন জানান, হেডম্যান দলিল আহমদ এর বিরুদ্ধে কি অভিযোগ তা খতিয়ে দেখার জন্য বিট বন কর্মকর্তা আবুল কালামকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নতুন করে হেডম্যান নিয়োগের বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেন।

পাঠকের মতামত: