ঢাকা,শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪

চকরিয়া-পেকুয়া আসনে পরিচ্ছন্ন ব্যক্তি হিসেবে মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে জজ আমিনুল হক

স্টাফ রিপোর্টার, চকরিয়া ::  আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চকরিয়া-পেকুয়া আসনে এবার পরিচ্ছন্ন ব্যক্তি হিসেবে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দৌড়ে আলোচনায় বেশ এগিয়ে রয়েছেন অবসরপ্রাপ্ত সিনিয়র জেলা জজ আমিনুল হক।

রাজনীতির মাঠে একেবারে নতুন হলেও অল্পসময়ে তিনি ব্যক্তি ইমেজের কারণে একটি ভালো অবস্থান তৈরি করে নিয়েছেন। হঠাৎ করে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছেন জজ আমিনুল হক। পাশাপাশি তৃনমুল পর্যায়ে থেকে আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের নজরে রয়েছেন তিনি। এলাকাভিত্তিক মতবিনিময় গণসংযোগ তিনি চকরিয়া পেকুয়া উপজেলার সর্বস্তরের মানুষের কাছে বেশ পরিচিতও পেয়েছেন ভোটের ময়দানে এসে।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর চকরিয়া পেকুয়া উপজেলার প্রতিটি গ্রামগঞ্জে ভোটের আমেজ পরিলক্ষিত হতে শুরু করেছে। এরই মধ্যে এই আসনে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন কে পাচ্ছেন তা নিয়েও দলীয় নেতাকর্মী থেকে শুরু করে সাধারণ জনগণের মাঝে কৌতুহল দেখা দিয়েছে।

আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতাদের অভিমত, এবার আওয়ামী লীগ সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শান্তি ও উন্নয়ন সমৃদ্ধ চকরিয়া পেকুয়া গড়তে এ আসনে একজন পরিচ্ছন্ন ব্যক্তিকে নৌকার মাঝি হিসেবে মনোনীত করবেন। তাদের দাবি, অনেক আগেই এই আসনের নৌকার মাঝি মনোনয়নে যোগ্য প্রার্থী কে তার আমলনামা আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার টেবিলে পৌঁছে গেছে। পাশাপাশি দলের সাইনবোর্ড বিক্রি করে কে বা কারা চকরিয়া পেকুয়া উপজেলায় বিগত সময়ে কী করেছে তাঁর আমলনামাও প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে জমা হয়েছে।

আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের অভিমত থেকে প্রতিয়মান হচ্ছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চকরিয়া- পেকুয়া আসনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন পরিচ্ছন্ন ও যোগ্য প্রার্থীকে এবার নৌকার টিকেট দেবেন।

জনগণের মাঝেও নৌকার মাঝি মনোনয়ন নিয়ে এবার কৌতুহল বেড়ে গেছে। বিশেষ করে চকরিয়া উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের বাসিন্দা প্রয়াত চেয়ারম্যান নুরুল হোছাইনের সন্তান অবসরপ্রাপ্ত সিনিয়র জেলা জজ আমিনুল হক ভোটের মাঠে নামার পর থেকে বদলে গেছে চকরিয়া পেকুয়া আসনের পরিস্থিতি। এখন জনগণের কাছে একটাই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে জজ আমিনুল হককে নিয়ে। সরকারি আমলা হিসেবে সরকারের উপর মহলে নিবিড় যোগাযোগ থাকায় এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দৌড়ে আলোচনায় বেশ এগিয়ে রয়েছেন জজ আমিনুল হক।

অবসরপ্রাপ্ত সিনিয়র জেলা জজ আমিনুল হক বলেন, অল্প কদিন গণসংযোগ মতবিনিময় করে আমি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মেম্বার ও সর্বস্থরের মানুষের কাছে যথেষ্ট সাড়া পেয়েছি। আমি একটি বিষয়ে পরিস্কার হয়েছি, আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও সাধারণ জনসাধারণ এখানে পরিবর্তন চান। একজন পরিচ্ছন্ন মানুষকে তাদের পাশে রাখতে চান।

তিনি বলেন, চকরিয়া পেকুয়া উপজেলার নিবেদিত প্রাণ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের সকলস্থরের নেতাকর্মী এবং সর্বস্থরের জনগণের দোয়া ও সহযোগিতা আমি বারবার চাই। আশাকরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবার চকরিয়া পেকুয়াবাসিকে নতুন কিছু উপহার দেবেন।

পাঠকের মতামত: