ঢাকা,শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪

উদ্বোধনী রেলে চড়ে রামু রেল জংশনে আসলেন প্রধানমন্ত্রী

সোয়েব সাঈদ, রামু :: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ শনিবার কক্সবাজারে আইকনিক রেলস্টেশন ও দোহাজারী-রামু-কক্সবাজার রেললাইন উদ্বোধন করেছেন। এর মাধ্যমে স্বাধীনতার দীর্ঘ বছর পরে কক্সবাজারবাসীর কাংখিত স্বপ্নের বাস্তবায়ন করলেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। উদ্বোধন অনুষ্ঠানের পরে টিকেট কেটে কক্সবাজার রেল স্টেশন থেকে ১১ কিলোমিটার রেলে চড়ে রামু রেল জংশনে পৌঁছান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী উদ্বোধনী রেলগাড়িটি আজ শনিবার দুপুর ১টা ৫০ মিনিটের সময়ে রামু রেল জংশনের কাছাকাছি দেখা যায়। এ সময় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) এর একটি হেলিকপ্টার প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী রেলগাড়ির চারপাশে উড়ছিল। ছয় মিনিটের মধ্যে রেল জংশনে থামে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী রেলগাড়িটি। এর দশ মিনিট পর রামু রেল জংশন থেকে কঠোর নিরাপত্তায় একটি কালো রঙের কারে চড়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১০ পদাতিক ডিভিশন, রামু সেনানিবাসের উদ্যেশে রওয়ানা হন। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর গাড়ি বহরের সাথে ছিলেন মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, গোয়েন্দা সংস্থা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা।

রামু রেল জংশন থেকে গাড়ি বহর রামু সেনা নিবাসে যাওয়ার পথে, রামু-কক্সবাজার মহাসড়কের দুই পাশে আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী, জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আসা জনতা কক্সবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমলের পক্ষে স্লোগানে স্লোগানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানান।

এরপর আজ শনিবার (১১ নভেম্বর) বিকালে মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়িতে কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্র উদ্বোধন শেষে জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ সময় রামু ও কক্সবাজার শহরজুড়ে চলে উৎসবের আমেজ। প্রধানমন্ত্রীর আগমনে কৃতজ্ঞতা ও অভিবাদন জানানো হয় ব্যানার, ফেস্টুন, সড়ক তোরণের মাধ্যমে। বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের চিত্র রয়েছে এসব ব্যানার, ফেস্টুনে। রয়েছে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের প্রচারণাও।

 

পাঠকের মতামত: