ঢাকা,মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪

খুটাখালীর সংরক্ষিত বনে হাতির মৃত্যু 

নিজস্ব প্রতিবেদক :: কক্সবাজারের চকরিয়ার খুটাখালী ইউনিয়নের সংরক্ষিত বনাঞ্চলের ভেতর গুরুতর আহত অবস্থায় পড়ে ছিল একটি হাতি। এ খবর পেয়ে বনবিভাগ সেই হাতির চিকিৎসা প্রদান কার্যক্রম শুরু করে।

কিন্তু চিকিৎসাধীন অবস্থায় পাঁচ দিনের মাথায় হাতিটি শনিবার (১৫ এপ্রিল) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে মারা যায়। পরে ময়নাতদন্ত প্রক্রিয়া সম্পন্নের পর হাতিটিকে মাটিতে পুঁতে ফেলা হয়।

হাতিটির ময়নাতদন্ত প্রক্রিয়ায় থাকা চকরিয়ার ডুলাহাজারাস্থ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কের বন্য প্রাণী চিকিৎসক হাতেম সাজ্জাদ জুলকার নাইন জানান, আহত হয়ে পাঁচ দিন ধরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাওয়া হাতিটি পুরুষ ছিল। বয়স আনুমানিক আট বছরের মধ্যে হবে।

তিনি জানান, হাতিটির আঘাতের পারিপার্শ্বিকতায় ধারণা করা হচ্ছে, আরেকটি বয়স্ক পুরুষ হাতি (দাঁতাল হাতি) এই হাতির সঙ্গে লড়াই হয়েছে। এতে আক্রমণে হাতিটির পেছনের অংশে বেশ আঘাত লাগে। এতে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে হাতিটি।

চকরিয়া উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আরিফ উদ্দিন জানান, হাতিটির চিকিৎসাসেবা শুরু করা হলেও আঘাত গুরুতর হওয়ায় প্রাণে বাঁচানো যায়নি। মারা যাওয়ার পর হাতিটির ময়নাতদন্ত কার্যক্রম সম্পন্নের পর মাটিতে পুঁতে ফেলা হয়।

কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের ফুলছড়ি রেঞ্জের নিয়ন্ত্রণাধীন খুটাখালী বনবিট কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. সাইফুর রহমান জানান, বিটের কর্মীরা গত ১১ এপ্রিল সকাল সাড়ে ৯টার দিকে খুটাখালী বনবিটের নিয়ন্ত্রণাধীণ জঙ্গল খুটাখালী মৌজার সংরক্ষিত বনাঞ্চলের কেশখোলা নামক এলাকায় টহল শুরু করে। এ সময় টহলরত কর্মীরা একটি পুরুষ হাতিকে গুরুতর আহত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। এর পর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করার পর হাতিটির চিকিৎসায় প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বাঁচানো যায়নি।

বিট কর্মকর্তা আরো জানান, হাতি মারা যাওয়ার ঘটনায় শনিবার রাতে তিনি বাদী হয়ে চকরিয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

 

পাঠকের মতামত: