ঢাকা,সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩

রামগড়ে ইমিগ্রেশন চালুর সব প্রস্তুতি সম্পন্ন

নিজস্ব সংবাদদাতা, রামগড় ::
খাগড়াছড়ির রামগড়ে ইমিগ্রেশন ভবন ও স্থলবন্দরের কাজের অগ্রগতি দেখতে পরিদর্শন করেছেন ভারত স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষ’র চেয়ারম্যান আদিত্য মিত্র ও কাস্টমসের প্রধান কমিশনার যোগেন্দ্র গার্গসহ উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধিদল। গতকাল বুধবার (৪ জানুয়ারি) প্রতিনিধিদলটি রামগড়-সাব্রুম স্থলবন্দরের সংযোগকারী মৈত্রী সেতু দিয়ে রামগড়ে আসেন। রামগড় স্থলবন্দরের প্রকল্প পরিচালক মো. সরোয়ার আলম ভারতীয় প্রতিনিধিদলকে বাংলাদেশে স্বাগত জানান। প্রতিনিধিদলটি প্রথমে ফেনীনদীর ওপর ভারতের অর্থায়নে নির্মিত বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী সেতু ও রামগড় স্থলবন্দরের জন্য নির্ধারিত স্থান পরিদর্শন করেন।

পরে তারা নবনির্মিত রামগড় ইমিগ্রেশন ভবন ঘুরে ঘুরে দেখেন। এসময় রামগড় স্থলবন্দরের প্রকল্প পরিচালক মো. সরোয়ার আলম প্রতিনিধিদলকে ইমিগ্রেশন কার্যক্রমের প্রস্তুতি ও স্থলবন্দর সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য অবহিত করেন। ভারতীয় প্রতিনিধিদলে মধ্যে ছিলেন ভারত স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষর পরিচালক (প্রকল্প) গীতেশ দীপ, ভারতের কাস্টমসের অতিরিক্ত কমিশনার টমাস বাসু মিত্র, সহকারী কমিশনার অভ্যুদয় গুহ, স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষর সহাকারী প্রকৌশলী কাভার সিং, ম্যানেজার ডি নন্দী।

এছাড়া চট্টগ্রামে নিযুক্ত ভারতের সহকারী হাই কমিশনার এইচ ই ড. রাজীব রঞ্জন এবং রামগড় ৪৩ বিজিবি’র পরিচালক লে. কর্নেল মো. হাফিজুর রহমান ও সাব্রুমের ৯৬ বিএসএফ’র কমান্ড্যান্ট কৃষ্ণ কুমার লাল উপস্থিত ছিলেন। রামগড় ইমিগ্রেশন ভবন পরিদর্শনের আগে প্রতিনিধিদলটি সাব্রুম আইসিপির অস্থায়ী অফিস পরিদর্শন করেন।

রামগড় স্থলবন্দরের প্রকল্প পরিচালক মো. সরোয়ার আলম বলেন, রামগড় সাব্রুম স্থলবন্দরের ইমিগ্রেশন র্কাযক্রম চালুর প্রস্তুতি সচক্ষে দেখার জন্য ভারতীয় প্রতিনিধিদলটি সরেজমিনে পরিদর্শনে এসেছেন। তিনি বলেন, প্রতিনিধিদল এখানকার প্রস্তুতি দেখে খুবই সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। প্রকল্প পরিচালক আরও বলেন, ইমিগ্রেশন কার্যক্রম চালু করার জন্য রামগড় ইমিগ্রেশন ভবন পুরোপুরি প্রস্তুত। প্রধানমন্ত্রী ইমিগ্রেশন কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন। তিনিই এ উদ্বোধনের দিন-তারিখ ঠিক করবেন।

পাঠকের মতামত: