ঢাকা,শনিবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২০

বাঁশখালীতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে চকরিয়ার ৫জনসহ ৩৪ জলদস্যুর আত্মসমর্পণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চকরিয়া ::
জলদস্যুতা ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার লক্ষে ৩৪ জলদস্যু জমা দিচ্ছেন তাদের ব্যবহৃত অস্ত্র। আজ বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) দুপুর ১২ টায় চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের উপস্থিতিতে তারা আত্মসমর্পণ করছেন।

কুতুবদিয়া, মহেশখালী, পেকুয়া, বাঁশখালী, চকরিয়া এই ৫ উপজেলার ৩৪ জন জলদস্যু আত্মসমর্পণ করছেন।

আত্মসমর্পণকারী জলদস্যুরা হলেন– মহেশখালীর বাইশ্যা বাহিনী ও ফুতুক বাহিনীর মো. আব্দুল হাকিম ওরফে বাইশ্যা ডাকাত (৫২), মো. আহামদ উল্লাহ (৪২), মো. আব্দুল গফুর ওরফে গফুর (৪৭), মো. দিদারুল ইসলাম ওরফে পুতিক্যা (৩২), মো. জসিম উদ্দিন (২৬), মো. মিজানুর রহমান (২৩), মো. আবু বক্কর সিদ্দিক ওরফে বাইশ্যা (২৯), মো. বেলাল মিয়া (৩০), মো. আব্দুল হাকিম ওরফে বাক্কু (৩৫), মো. রশিদ মিয়া (৩৬)।

কুতুবদিয়ার খলিল বাহিনীর সদস্য, আব্দুর রহিম (৬৪), মো. মাহমুদ আলী ওরফে ভেট্টা, মো. ওবায়দুল্লাহ (৩৬), মো. ইসমাইল (২৪), সাহাবুদ্দিন ওরফে টুন্নু (৩২)।

বাঁশখালীর রমিজ বাহিনীর মো. ইউনুস (৫৬), মো. তৌহিদ ইসলাম (৩৪), মো. ফেরদৌস (৫২), মো. রেজাউল করিম (৪০)।

 পেকুয়ার বাদশা বাহিনীর মো. নিজাম উদ্দিন ভাণ্ডারী, মো. ইউনুস (৫১), মো. কামাল উদ্দিন (৪৭), মো. আব্দু শুক্কুর (২৮), মো. ইউনুচ (৪২), জিয়া বাহিনী ও নাছির বাহিনীর সাহাদাত হোসেন (দোয়েল) (৪১), মো. পারভেজ (৩৩), মো. নাছির (৫১), আমির হোসেন (৪৮), মো. সাকের (৪০)।

এ ছাড়া আত্মসমর্পণ করেছেন

চকরিয়ার কালাবদা বাহিনীর মো. সেলিম বাদশা (৩৪), মো. আব্দুল গফুর ওরফে গফুর, মো. আবু বক্কর সিদ্দিক (৩১), মো. মামুন মিয়া (২৭) ও মো. মন্জুর আলম (৪২)।

এছাড়া তাদের কাছে থাকা দেশি বিদেশি মোট ৯০টি এলজি, ৪১টি থ্রি কোয়াটার এলজি ১৯টি, বিদেশি পিস্তল ১টি, রিভলভার ১টি, এসবিবিএল ৫টি ডিবিবিএল বন্দুক ১টি, ওয়ান শুটার ১টি, থ্রি কোয়াটার ওয়ান শুটার ১টি, এসএসবিববিএল ওয়ান শুটার ১টি, পাইপগান ১টি, এয়ারগান ২টি, ২০৫৬ রাউন্ড গুলি, বার বোরের গুলি ৮৮৬, ২২ বোরের রাইফেলের ১১৭০ রাউন্ড গুলিও জমা দিচ্ছেন।

পাঠকের মতামত: