ঢাকা,শনিবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২০

পেকুয়ায় ডাম্পার-সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-২, আহত-৪

নিজস্ব প্রতিবেদক, পেকুয়া থেকে ::
কক্সবাজারের পেকুয়ায় ডাম্পার ও সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে দুইজন নিহত ও ৪জন আহত হয়েছে। আহতদের পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

আজ সোমবার দুপুর আড়াইটার দিকে আঞ্চলিক মহাসড়কের সদর ইউপির নন্দীরপাড়া ষ্টেশনে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন পেকুয়া উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের মগঘোনা গ্রামের মৃত,খলিলুর রহমানের ছেলে সিএনজি চালক আবু তালেব (৩৮) ও কুতুবদিয়া উপজেলার উত্তর ধুরুং ইউনিয়নের আজিম উদ্দিন সিকদার পাড়া এলাকার মৃত,গিয়াস উদ্দিনের ছেলে আমিনুর কবির (৩৯) ।

আহতরা হলেন একই এলাকার ছৈয়দ আলমের ছেলে মো.আক্কাস (৩৫) তার মেয়ে সোনিয়া আক্তার (১৬) ও একই উপজেলার বড়ঘোপ ইউনিয়নের গোলজার পাড়া এলাকার আব্দুল হান্নানের ছেলে দিদারুল ইসলাম (২৮)। অপর একজনের নাম ঠিকানা পাওয়া যায়নি।

পেকুয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ সময় ডাম্পার ও সিএনজি গাড়ি জব্দ করা হয়েছে। তবে ডাম্পার চালক ফোরকান সটকে পড়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, পেকুয়ার মগনামা জেটিঘাট থেকে ৫জন যাত্রী নিয়ে সিএনজি গাড়িটি চকরিয়া যাচ্ছিলেন। আঞ্চলিক মহাসড়কের নন্দীর পাড়া ষ্টেশনে পৌছলে বিপরীত দিক থেকে আসা বালি ভর্তি একটি ডাম্পার সিএনজিতে মুখোমুখি ধাক্কা দেয়।

এ সময় সিএনজি গাড়ি ধুমড়ে মুছড়ে যায়। এ সময় চালকসহ ৬জন গুরুতর আহত হন। ঘটনাস্থলে মারা যান আমিনুর কবির।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে বাঁশখালীর জলদি এলাকায় মারা জান সিএনজি চালক আবু তালেব।

পেকুয়া থানার ওসি সাইফুর রহমান মজুমদার চকরিয়া নিউজকে জানান, সড়ক দুর্ঘটনার খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক পুলিশ পাঠিয়েছি। লাশ হাসপাতালে রয়েছে। সেখানে পুলিশ রয়েছে। ২টি গাড়ি জব্দ করা হয়েছে।

পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক রুবেল হোসেন জানায়, আহতদের অবস্থা গুরুতর।

পাঠকের মতামত: