ঢাকা,রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০

লামায় অসাধু কর্মকর্তার তদন্ত প্রতিবেদন ভূমি দস্যুতাকে উৎসাহ দিচ্ছে

লামা প্রতিনিধি ::  বান্দরবানের লামা উপজেলায় ভূমি বেচা বিক্রি দলিল সৃজনে ব্যাপক অনিয়ম হচ্ছে। একই ভূমি একাধিক ব্যক্তির সাথে বিক্রি বায়নানামা দলিল সম্পাদন হয়। এছাড়া অনৈতিক লেন-দেনের মাধ্যমে ভূমি প্রশাসনের কিছু অসাধু কর্মকর্তার দায়সারা তদন্ত প্রতিবেদন ভূমি দস্যুতাকে উৎসাহ দিচ্ছে। রবিবার দুপুরে উপজেলার আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় এসব অভিযোগ তুলেন বক্তারা। এ সময় বক্তারা আরও বলেন, অনৈতিক লেন দেনে ভূমি বিভাগের কেউ কেউ আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ বনলেও, প্রান্তিক মানুষ বাস্তুহারা হওয়া সহ আইন শৃঙ্খলা অবনতির কারণ হচ্ছে এ প্রতিবেদন। ভূমি মালিকানার মতো একটি স্পর্সকাতর বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের স্বার্থান্ধতা গোটা সমাজ পরিমন্ডলে সংঘাতময় পরিস্থিতি বিরাজ করছে। ভুমি নিয়ে প্রায়ই ঘটে চলছে হানা-হানি, মামলা-হামলা সহ নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি। এই অবস্থা থেকে পরিত্রানের দাবী জানান বক্তারা।

উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভাপতি ও নির্বাহী অফিসার রেজা রশীদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. জাহেদ উদ্দিন, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মো. আলমগীর, গজালিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বাথোয়াইচিং মার্মা, লামা সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মিন্টু কুমার সেন, রুপসীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ছাচিংপ্রু মার্মা, সরই ইউনিয়ন পরিষদ চেযারম্যান ফরিদ উল আলম, ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. জাকের হোসেন মজুমদার, আজিজনগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. জসিম উদ্দিন, প্রেসক্লাব সভাপতি প্রিয়দর্শী বড়–য়া ও সাধারণ সম্পাদক মো. কামরুজ্জামান সহ আইন শৃঙ্খলা কমিটির সদস্যগন উপস্থিত ছিলেন। শেষে ভুমিসহ উপজেলায় আইন শৃঙ্খলা উন্নয়নে সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে আলাপ করে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দেন সভার সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেজা রশীদ।

পাঠকের মতামত: