ঢাকা,মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১

পেকুয়ায় সেতুতে ঝুকিপূর্ণ গর্তে সড়ক দুর্ঘটনার শংকা !

এইচ এম রিয়াজ, পেকুয়া :: পেকুয়ায় ব্রীজ পারাপারে মারাত্মক ঝুঁকি সৃষ্টি হয়েছে। উপজেলার ফাঁশিয়াখালী-রাজাখালী সড়কের বারবাকিয়া ইউনিয়নের ফাঁশিয়াখালী জালিয়াকাটা খালের উপর স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশল অধিদপ্তর কর্তৃক নির্মিত ব্রীজে গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। এতে করে ওই সড়ক দিয়ে যাতায়াত যানবাহন সমুহ চরম ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে। প্রধান সড়কের পারাপার ব্রীজের মাঝখানে এ গর্ত হয়েছে। আরসিসি এ ব্রীজের ঢালাইয়ের আস্তর ধসে পড়েছে। এতে করে ফাঁশিয়াখালী- রাজাখালী প্রধান সড়কে যাতায়াতে ঝুঁকি দেখা দিয়েছে। যে কোন মুহুর্তে ঝুঁকিপূর্ণ ব্রীজটি নদীতে ধসে যেতে পারে। এতে যানচলাচলসহ পারাপারে মারাত্মক দুর্ঘটনার শংকা দেখা দিয়েছে।

পেকুয়া বাজার থেকে ওই সড়কটি ফাঁশিয়াখালী হয়ে রাজাখালী সবুজ বাজার দিয়ে আরব শাহ বাজার পর্যন্ত বিস্তৃত। তাছাড়া বারবাকিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন সড়কের সাথেও এর সংযোগ রয়েছে। এ সড়কটি উপজেলার অন্যতম প্রধান সড়ক। রাজাখালী থেকে এ সড়ক দিয়ে সরাসরি উপজেলা সদরে যাতায়াত হয়ে থাকে। এ সড়ক দিয়ে নিয়মিত হাজার হাজার মানুষের যাতায়াত হয়ে থাকে।

রাজাখালীতে মৎস প্রজেক্ট ও লবন মাঠ থাকায় দৈনন্দিন বিভিন্ন মালবাহী গাড়ি চলাচল করে থাকে। চলাচলের ভিন্ন মাধ্যম থাকলেও পুরাতন সড়ক হওয়ায় এর গুরুত্ব রয়েছে বেশী।

এর আগেও সড়কের ওই পয়েন্টে ব্রীজে ধস তৈরী হয়। ভেঙে পড়েছিল সাইট ওয়াল। সেসময় কিছুটা সংস্কার করলেও তা বেশিদিন স্থায়ী হয়নি। ফের ধসে পড়েছে এখন।

জানাযায়, গত দশ বার দিন ধরে বারবাকিয়া ও রাজাখালী ইউনিয়নের মাঝখানে প্রবাহিত খালের উপর ব্রীজটির এ বেহাল দশায় পরিনত হয়। এটি নির্মিত হয় ১৯৯৩-৯৪ সালে, যার দৈর্ঘ্য ২৪’৪০ মিঃ।
স্থানীয়রা জানান, এ ব্রীজের মাঝখানে গোলাকার গর্ত তৈরী হয়ওয়া ব্রীজটি ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে। পুরো ব্রীজের পালাস্তর উঠে গেছে। লোহার নেট দেখা যাচ্ছে। পায়ে হেঁটে গেলে যে কোন মুহুুর্তে দুর্ঘটনা হওয়ার মত পরিস্থিতি তৈরী হয়েছে। যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতা দেখা দেয়। মাঝখানে গর্ত হওয়ায় একপেশে ব্রীজটি দ হয়েছে। একপেশে যানবাহন চলাচল হচ্ছে। একাধিক যানবাহন উভয়পাশ থেকে চলাচল করলে তৈরী হচ্ছে যানজট।

সচেতন ব্যক্তিরা বলেন, ব্রীজটি সঠিক ভাবে পরিকল্পনা ও টেকসই ভাবে নির্মিত না হওয়ায় দীর্ঘদিন যাবৎ মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ সড়কের এই ব্রীজটি পাশে এতই ছোট যে দুটি রিক্সা পর্যন্ত একসাথে চলাচল করতে পারেনা। মালবাহী গাড়ি তো দুরের কথা যাত্রীবাহী কোন গাড়ি ব্রীজে উঠলে কম্পন সৃষ্টি হয়। বিভিন্ন সময় ঘটছে দুর্ঘটনাও, এসব দুর্দশা দেখার যেন কেউ নাই!

তাই তারা দ্রুত সমস্যা সমধান ও দুর্ঘটনা এড়াতে এই পয়েন্টে টেকসই নতুন ব্রীজ নির্মাণের জন্য স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশল অধিদপ্তর এবং উপজেলা প্রশাসনের কাছে জোর দাবী করেন।

পাঠকের মতামত: