Home » কক্সবাজার » চকরিয়ায় সার না পেয়ে হাহাকার কৃষকরা

চকরিয়ায় সার না পেয়ে হাহাকার কৃষকরা

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

মোঃ নিজাম উদ্দিন, চকরিয়া ::  চকরিয়া উপজেলার ফাঁসিয়াখালীতে সার না পেয়ে পথে নেমেছে কৃষকরা। ভুক্তভোগীরা সাব ডিলারের বিরুদ্ধে সার পাচার, ডিলারের স্বেচ্ছাচারিতা, সার বিক্রি না করা, সার্বক্ষণিক দোকান বন্ধ ও শিক্ষকতার দায়িত্বে থেকে সাব ডিলার নামে কৃষক হয়রানির অভিযোগ তুলেন।
সরেজমিনে জানা গেছে, উপজেলার ফাসিয়াখালী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড সারের সাব ডিলার আবু হুরায়রা। তার মুল ডিলার আবুল হাশেম। আবু হুরাইরা পেশায় একজন শিক্ষক ও নিয়মিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সময় দেন। কৃষকদের অভিযোগ তিনি শিক্ষকতায় সময় দিতে গিয়ে সার ডিলার পরিচালনা করতে পারছেন না। এদিকে অভিযুক্ত আবু হুরাইরা প্রতিবেদকের কাছেও স্বীকার করেছেন দীর্ঘ সময় ধরে কোনপ্রকার সার তুলতে পারনেনি তিনি। কারণ জানতে চাইলে তার পক্ষে মিলেনি কোন প্রকার সদুত্তর।
এদিকে হাজিয়ান এলাকার কৃষকরা জানান, ঠিকমতো সার না পেয়ে তাদের চাষাবাদ চরম ব্যহত হচ্ছে। বন্যায় নষ্ট হয়ে যাওয়া ক্ষেতখোলা সজাগ করতে ও ধান চাষের জন্য দরকার হচ্ছে উপযুক্ত সার। কিন্তু সার না পেয়ে তাদের প্রতিনিয়ত হিমসিম পোহাতে হচ্ছে। গতকাল ফাঁসিয়াখালী ১নং ওয়ার্ড আমতলী এলাকায় কৃষকরা বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মোঃ শাহ আলম বাদশাহ, মোক্তার হোসেন বাবলু, কফিল উদ্দিন, আলী আকবর, জয়নাল আবেদীন, বদি আলম মেম্বার, মোবারক আলী, জামাল হোসেন, বশির আহমদ, শাহাব উদ্দিন, হাবিবুর রহমান সওদাগর ও রিয়াজ উদ্দিনসহ বিক্ষুদ্ধ কৃষকেরা।
প্রতিবাদ সমাবেশে কৃষকদের পক্ষে শাহ আলম বাদশাহ (প্রকাশ বাদশা মেম্বার) ও বদি আলম মেম্বার বলেন, তাদের এলাকায় সার ডিলার হাজিয়ান ইবতেদায়ী মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক। সে সুবাদে তিনি কৃষকদের মাঝে সার বিতরন না করে, অন্যত্রে বেশীদামে সার বিক্রি করেন এবং কলঘরস্থ সারের ডিপোতে তিনি উপযুক্ত সময় না দিয়ে কৃষকদের চরম ক্ষতি সাধন করছেন। যারফলে দূরদূরান্ত থেকে বস্তা প্রতি দু’তিনশ টাকা অতিরিক্ত খরচ করে সার আনতে হচ্ছে। এতে আর্থিক চরম ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে কৃষকরা। এমতাবস্থায় ওই এলাকার কৃষকরা নতুন সাব ডিলার নিয়োগ করে নিয়মিত সার পাওয়ার ব্যবস্থা করে তাদের দুঃখ-কষ্ট লাগবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেন।
এব্যাপারে চকরিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আতিক উল্লাহর মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও ফোন রিসিভ না করায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

প্রতিবন্ধীদের ব্যাপারে নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে হবে

It's only fair to share...000 ডেস্ক নিউজ :: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈষম্য মুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠায় তাঁর ...

error: Content is protected !!