ঢাকা,মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২১

চকরিয়ায় বন্যা পরবর্তী বেতুয়াবাজার সেতু ও নদী ভাঙ্গন ক্ষতিগ্রস্থ সড়ক পরিদর্শনে সড়ক বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী

নিজস্ব প্রতিবেদক,চকরিয়া ::  চকরিয়ায় বন্যা পরবর্তী ক্ষতিগ্রস্থ বেতুয়াবাজার সেতু ও মাতামুহুরী নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে ভয়াবহ ভাঙ্গন এবং উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্থ সড়ক সংস্কারের লক্ষ্যে গতকাল মঙ্গলবার সড়ক বিভাগের প্রকৌশলীদের নিয়ে সংশ্লিষ্ট এলাকা পরিদর্শন করেছেন চকরিয়া-পেকুয়া আসনের এমপি ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম।

গতকাল দুপুরে এমপি আলহাজ জাফর আলম প্রথমে বিএমচর ইউনিয়নে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ বেড়িবাঁধ ও বেতুয়াবাজার সেতুর ক্ষতিগ্রস্থ পয়েন্ট পরিদর্শন করেন। এরপর তিনি মাতামুহুরী নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে ভয়াবহ ভাঙ্গন এবং উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্থ সড়ক পরিদর্শন করেন। এসময় এমপির সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্থ পয়েন্ট সমুহ পরিদর্শন করেন সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব জনাব মোঃ নজরুল ইসলাম ও সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তের প্রধান প্রকৌশলী ইবনে আলম হাসান, সড়ক ও জনপথ বিভাগের চট্টগ্রাম সার্কেলের তত্ত্ববধায়ক প্রকৌশলী আবু হেনা মোহাম্মদ তারেক ইকবাল ও কক্সবাজার সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জনাব পিন্টু চাকমা, চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরউদ্দিন মুহাম্মদ শিবলী নোমান, বিএমচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম জাহাংগীর আলম, পুর্ববড় ভেওলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ারুল আজিম দুলাল প্রমুখ।

পরিদর্শন শেষে বিকালে চকরিয়া সড়ক বিভাগের ডাকবাংলোতে মতবিনিময় সভায় মিলিত হন এমপি আলহাজ জাফর আলম। ওইসময় বন্যা পরবর্তী চকরিয়ার মাতামুহুরী সেতু, বেতুয়াবাজার সেতু ও সড়ক বিভাগের ক্ষতিগ্রস্থ সকল সড়ক মেরামতের জন্য সভায় উপস্থিত সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব জনাব মোঃ নজরুল ইসলাম ও সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তের প্রধান প্রকৌশলী ইবনে আলম হাসান, সড়ক ও জনপথ বিভাগের চট্টগ্রাম সার্কেলের তত্ত্ববধায়ক প্রকৌশলী আবু হেনা মোহাম্মদ তারেক ইকবাল ও কক্সবাজার সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জনাব পিন্টু চাকমার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

সভা পরবর্তীতে এমপি জাফর আলম চকরিয়া উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার সাড়ে ৬লাখ জনগনের স্বাভাবিক জীবন-যাপন আগের মতো নিশ্চিত করতে সহসা চকরিয়ায় বন্যা পরবর্তী সকল সেতু ও ক্ষতিগ্রস্থ সড়ক মেরামতের জন্য স্থানীয় সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন। প্রয়োজনে তিনি মেরামত কাজের বিপরীতে অর্থবরাদ্দ নিশ্চিতে মন্ত্রাণালয়ে তদবির করার আশ^াস দেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের। #

পাঠকের মতামত: