ঢাকা,মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০

মেয়র মকছুদের নেতৃত্বে কাউন্সিলর সাংবাদিক ছালামত উল্লাহকে হাত পা ভেঙে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা

মহেশখালী জেটিঘাটে স্প্রীট বোটের অপেক্ষায় হাতা পা ভাঙ্গা সাংবাদিক ছালামত ঊল্লাহ।

নিজস্ব প্রতিনিধি :: মেয়র মকছুদের নেতৃত্বে মহেশখালী প্রেসক্লাব সেক্রেটারী ও কাউন্সিলর ছালামত কে রড় ও হাতুড়ি দিয়ে হাত পা ভেঙে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। ছালামত উল্লাহর জানান,আগামী নতুন বাংলা সনের মহেশখালী পৌরসভার হাট বাজার,গাড়ীর লাইন,জেটিঘাট,কসাইখানা

গরুছাগলের বাজার বার্ষিক ইজারার গোপনে নিলাম সম্পাদন,আত্মীয় স্বজনের নামে বিভিন্ন টেন্ডারের কাজ ভাগিয়ে নেওয়া,সহ নানা বিষয় নিয়ে মত বিরোধের জের ধরে ২ এপ্রিল রাত অনুমান ৯টায় মহেশখালী উপজেলা দীঘির উত্তর পাড়ের ননগেজেট কর্মচারী ক্লাবের সামনে থেকে মেয়র মমকছুদ ও তার লোকজন প্রকাশ্য জনসম্মুখে সিএনজি গাড়ী থেকে নেমে দীঘির পূর্ব পাড়ের মৎস্য ভবনের সামনে থেকে ছালামত উল্লাহকে গাড়ীতে তুলে নিয়ে যায়। ছালামত কাউন্সিলর বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার করলে সিএনজি গাড়ী দ্রুত তাকে নিয়ে স্থান ত্যাগ করে।পরে পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের দক্ষিন হিন্দুপাড়ার চরপাড়া সড়কের তপুজ্জাইলার বাড়ীর পাশে নিয়ে গিয়ে রড়,হাতুডি,ইলেকট্রিক্স তার ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে হাত পা ভেঙে দিয়ে মাটিতে ফেলে চলে যায়। পথচারী লোকজন দ্রুত মহেশখালী হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে কক্সবাজার মেডিকেলে প্রেরন করে।মহেশখালী হাসপাতালের চিকিৎসক জানান কাউন্সিলর ছালামত উল্লাহর বাম পা,বাম হাত,কোমর,ডান পা,হাড় ভাঙ্গা,বাম কান ও শরীরের স্থানে মারাত্মক জখম রয়েছে।সংবাদ পেয়ে মহেশখালী থানা পুলিশ হাসাপতালে গিয়ে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে। পরে পু্লিশ ও সাংবাদিকদের সহায়তায় ছালামতকে মহেশখালী জেটিঘাটে স্প্রীট বোট যোগে ককসবাজার পাঠানো হয়।মেয়র মকছুদের সাথে নুর হোসন, রুবেল, শামসুল অালম, সহ অারো কয়েকজনের নাম প্রকাশ্য বলতে পারলে রাতের আঁধারে কয়েকজন কে চিনতে পানেনি বলে আহত সাংবাদিক ছালামত ঊল্লাহ জানান। তার হাতের ২টি মোবাইল,নগদ ১২ হাজার টাকা লুট হয়ে যায় এঘটনায়।

পাঠকের মতামত: