Home » কক্সবাজার » পেকুয়ায় বনবিভাগের ৪ কর্মচারী বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা

পেকুয়ায় বনবিভাগের ৪ কর্মচারী বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

পেকুয়া প্রতিনিধি :   পেকুয়া উপজেলার বারবাকিয়া বনবিট কার্যালয়ের ৪কর্মচারী সহ ৫জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার(১৮অক্টোবর) চকরিয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এ মামলা দায়ের করেন টইটং ইউনিয়নের ধনিয়াকাটা পূর্ব পাড়া এলাকার মোঃ ইসমাইলের ছেলে মোঃ ইলিয়াছ উদ্দিন সুমন। মামলাটি আমলে নিয়ে পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, বাদী মোঃ ইলিয়াছ উদ্দিন সুমনের ভগ্নিপতি ধনিয়াকাটা এলাকার মৃত হাবিবুর রহমানের ছেলে নবী হোছাইন ১০ বছর পূর্বে তার বসতভিটে কিছু অষ্ট্রেলিয়া গাছ রোপন করে। সম্প্রতি তার কলেজ পড়ুয়া মেয়ের বিবাহ উপলক্ষ্যে এর ১০-১৫টি গাছ মাহাম্মদ মাঝি নামের এক গাছ বিক্রেতার কাছে বিক্রি করে। ১৭ অক্টোবর সকালে বিক্রিত গাছগুলো কাটতে গেলে স্থানীয় জালাল আহমদ সহ ৪ জন বনবিট কর্মচারী হালিম, হাবিব, দেলোয়ার ও কবির ঘটনাস্থলে এসে ১০ হাজার টাকা চাঁদাদাবি করে। দাবিকৃত চাঁদা না দিলে বাদীসহ সাক্ষীদের মিথ্যা বন মামলা দেওয়ার হুমকি প্রদান করে। এতে বাধ্য হয়ে মাহাম্মদ মাঝি তাদের পাঁচ হাজার টাকা চাঁদা দেন। এ পাঁচ হাজার টাকা নিয়ে যাবার পথে দাবীকৃত অবশিষ্ট পাঁচ হাজার টাকা না দিলে মিথ্যা মামলা জড়ানোর ফের হুমকি দিয়ে যায়।

এব্যাপারে পেকুয়ায় থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জাকির হোসেন ভূঁইয়া বলেন, মামলার কাগজপত্র গুলো আদালত থেকে এখনো আমার কাছে এসে পৌঁছায়নি। কাগজপত্র হাতে পেলে আইনগতভাবে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

লামায় ৩৪টি ইটভাটায় কাটতে পাহাড়, পুড়ছে কাঠ ও চলছে শিশুশ্রম

It's only fair to share...45800মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, লামা :: সরকারি অনুমোদন ছাড়াই বান্দরবানের লামায় গড়ে ...

error: Content is protected !!