ঢাকা,মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ঈদগাঁও উপজেলার সড়ক ও সেতু দ্রুত সংস্কারের নির্দেশ দিলেন সিনয়র সচিব হেলালুদ্দিন আহমেদ

নুরুল আমিন হেলালী :: কয়েকদিনের টানা ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলে ক্ষতিগ্রস্ত ঈদগাঁও উপজেলার বিভিন্ন সড়ক উপসড়ক, ব্রীজ, কালভার্ট’সমুহ দ্রুত সংস্কারের নির্দেশনা দিয়েছেন স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলাল উদ্দীন আহমদ ।

টানা প্রবল বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে গত ২৭ জুলাই ঈদগাঁও উপজেলার বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়ে বিভিন্ন সড়ক-উপসড়ক, সেতু,কালভার্ট ক্ষতবিক্ষত হয়ে পড়েছে এবং ঈদগাঁওবাজারের সাথে বিভিন্ন এলাকার সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।
স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলাল উদ্দীন আহমদ বন্যা বিধ্বস্ত ওই সকল ভাঙ্গনপীড়িত সড়ক-উপসড়ক ও সেতু’সমুহ দ্রুত সময়ের মধ্যে সংস্কার করার জন্য স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরকে নির্দেশ প্রদান করেন
শুক্রবার (৩০জুলাই) স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মোখলেছুর রহমানের নেতৃত্বে অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী তোফাজ্জল আহমদ, এলজিইডি কক্সবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী আনিসুর রহমান, সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী প্রতিপদ দেওয়ান, এলজিইডি কক্সবাজার সদর উপজেলা প্রকৌশলী মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, এলজিইডি উখিয়া উপজেলা প্রকৌশলী রবিউল আলম’সহ একটি প্রতিনিধিদল বন্যাকবলিত ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করেন।

প্রতিনিধিদলটি প্রথমে ঈদগাঁও-ঈদগড় সডকের পানেরছড়া স্থানের ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করেন এবং তাৎক্ষণিকভাবে সড়কের ওই ভাঙ্গা অংশটির সংস্কার কার্যক্রম শুরু করেন।
পরে প্রতিনিধিদলটি ঈদগাঁও -গোমতলী কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা সডকের বাঁশঘাটা পয়েণ্ট, কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা সড়কে নির্মানাধীন গোমাতলী সেতু, ঈদগাঁও – ফরাজীপাড়া সড়কের মঞ্জুর মৌলভীর দোকানস্থ জালালাবাদ- পোকখালী সংযোগ সেতু পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে প্রতিনিধিদলটি নির্মানাধীন গোমাতলী ব্রীজের ডাইভারসন সড়কের ( অস্থায়ী বিকল্প সড়ক) স্থানও চিহ্নিত করেন বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের পরিদর্শকদলের সাথে ওই সময় সার্বক্ষনিকভাবে উপস্থিত ছিলেন ঈদগাঁও উপজেলা বাস্তবায়ন পরিষদের প্রধান সমন্বয়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা মাষ্টার নূরুল আজিম।

কক্সবাজার এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী আনিসুর রহমান জানান, বন্যায় নবগঠিত ঈদগাঁও উপজেলার গ্রামীণ সড়ক, সেতু,কালভার্টের ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এখনও বিচ্ছিন্ন আছে কয়েকটি এলাকার সাথে ঈদগাঁও’র সড়ক যোগাযোগ। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের মাননীয় সচিব মহোদয়ের নির্দেশনা মোতাবেক আমরা দ্রুত সময়েব মধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক ও সেতু’সমুহ সংস্কারের লক্ষ্যে কার্যক্রম শুরু করেছি। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে এই সংস্কারকাজ সম্পন্ন হবে বলে তিনি আশ্বস্ত করেন।

বীরমুক্তিযোদ্ধা মাষ্টার নুরুল আজিম বলেন, এবারের বন্যা নবগঠিত ঈদগাঁও উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামীন জনপদ থেকে শুরু করে জেলার বৃহত্তম বাণিজ্যিক উপশহর ঈদগাঁওবাজারে সড়ক উপসড়ক,সেতু,ও কালভার্ট এবং সাধারণ মানুষ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, ভেঙে পড়েছে সড়ক যোগাযোগ।

পাঠকের মতামত: