ঢাকা,মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১

এখন ইয়াবা পাচারের অন্যতম বাহন ইজিবাইক ও মোটরসাইকেল

তোফায়েল আহমদ :: কক্সবাজার-টেকনাফ মহাসড়কের মরিচ্যা বিজিবি চেকপোস্টে তল্লাশি চালিয়ে বিজিবি সদস্যরা ৪০ হাজার ইয়াবাসহ একটি ইজিবাইক ও চালককে আটক করেছে। এ পরিমাণ ইয়াবার বাজার মূল্য এক কোটি বিশ লাখ টাকা। চালক ইজিবাইকের ব্যাটারির ভেতর লুকিয়ে পাচার করছিল ইয়াবার চালানটি।

আটক পাচারকারী ইজিবাইক চালকের নাম রাসেল মিয়া (২৫)। তিনি উখিয়া উপজেলা সদরের হাজাম রোড এলাকার ছালামতুল্লাহর পুত্র।

রামুর বিজিবি-৩০ ব্যাটালিয়ানের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল ফারুক ইব্রাহিম জানান, আজ সকাল ৭টার দিকে কুতুপালং থেকে কক্সবাজারমুখী একটি ইজিবাইকের ব্যাটারির ভেতর লুকিয়ে রাখা ৪০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করে চালককে আটক করা হয়। চালক কৌশলে ব্যাটারিতে ভরে পাচার করছিলেন এ পরিমাণ ইয়াবা।

তিনি জানান, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ইজিবাইকটিকে আটক করে তল্লাশি শুরু করেও প্রথমে কিছু পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে দেখা যায় গাড়ির দুইটি ব্যাটারির মধ্যে একটির তারগুলো কেন জানি এলোমেলো। তল্লাশির পর দেখা গেল ওই ব্যাটারিটির ভেতরের সবকিছু খুলে ফেলে ৪০ হাজার ইয়াবা ভর্তি করে পাচার করা হচ্ছিল।

বিজিবি’র ব্যাটালিয়ান অধিনায়ক আরো জানিয়েছেন, আটক ইজিবাইকচালক প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন যে, কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবির এলাকা থেকে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম ও টেকনাফ মহাসড়কের লিংক রোড পর্যন্ত পৌঁছে দেওয়ার চুক্তি এক লাখ টাকা। ইয়াবার মালিকের সাথে ইজিবাইক ও মোটরবাইকের চালকরাই এখন সরাসরি পরিবহণের চুক্তি করে থাকে।

মরিচ্যা বিজিবি চেকপোস্টের কমান্ডার নায়েব সুবেদার মাহমুদুল হাসান জানান, ইজিবাইক ছাড়াও মোটরবাইকেও ইয়াবার চালান পাচার হচ্ছে। গতকাল শুক্রবার সকালে মরিচ্যা চেকপোস্টে একটি মোটরবাইকের ব্যাটারিতে ভরে পাচারকালে ৪ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। গত সপ্তাহেও ইজিবাইকে পাচারকালে ৩০ হাজার ইয়াবাসহ চালককে আটক করা হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ইয়াবার ডিপো হিসাবে পরিচিত কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবির থেকে চালান পরিবহণে নিয়োজিত রয়েছে শত শত মোটরবাইক ও ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক। এই দুই প্রকারের যানবাহনে করে পাচারকারীরা নানা কৌশলে পাচার করছে ইয়াবার চালান। ইয়াবা নিয়ে গ্রামীণ সড়ক পথেই বেশিরভাগ চালান পাচার করা হয়ে থাকে। টেকনাফ-কক্সবাজার মহাসড়ক ছাড়াও মেরিন ড্রাইভ সড়ক ব্যবহার করে থাকেন ইয়াবা পাচারকারীরা। –কালেরকন্ঠ

পাঠকের মতামত: