ঢাকা,মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১

চকরিয়ার ভোটাররা ইভিএম কি জানে না

নিজস্ব প্রতিবেদক, চকরিয়া ::
নির্বাচন কমিশনের ঘোষনা অনুযায়ী মাত্র ১২দিন পরই চকরিয়া পৌরসভার নির্বাচন। নির্বাচনকে ঘিরে চকরিয়া পৌরশহরে বইছে ভোটের হাওয়া। পুরোদমে চলছে প্রচার প্রচারণা। পৌরসদরের প্রতিটি হাট-বাজার, রাস্তা-ঘাট বা চায়ের দোকানে এখন শুধু একটিই আলোচনা কে হচ্ছে চকরিয়ার পৌর পিতা। সোমবার থেকে শুরু হয়েছে ভোটের প্রচর-প্রচারণা। মেয়র পদে ৪জনসহ ৩ মহিলা ওয়ার্ড ও ৯টি ওয়ার্ডে র কাউন্সিলর প্রার্থীরা প্রচারণায় থেমে নেই কেউ। প্রচারণা চালাতে গিয়ে একে অপরের বিরুদ্ধে চালাচ্ছে নানা অপপ্রচারও। চলছে অভিযোগ আর পাল্টা অভিযোগও। প্রার্থীরা শেষ মুহুর্তে চেষ্ঠা করছেন ভোটাদের দ্বারে দ্বারে পৌঁছানোর।

এদিকে, বর্ষা মৌসুমে অতিবৃষ্টির কারণে পৌর এলাকার নিন্মাঞ্চলের জলাবদ্ধতাকে পুজি করেছে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা। নির্বাচনী প্রচারণায় তারা এসব বিষয়কে বর্তমান মেয়র আলমগীর চৌধুরীর দুর্বলতা হিসেব উপস্থাপন করেছন।

অপরদিকে, শঙ্কাও কাটছে না নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ঘোষিত ইভিএম পদ্ধতির ভোট নিয়ে। প্রথম বারের মতো ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট অনুষ্ঠিত হতে যাওয়ায় এ সম্পর্কে ধারণা না থাকায় সংশয় ও ভীতি তৈরী হয়েছে সাধারণ ভোটারদের মাঝে। নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা নিজ নিজ প্রতীক নিয়ে প্রচারণা চালালেও ইভিএমের মাধ্যমে ভোট প্রদানের বিষয়ে কোন ধরণের প্রচারণায় আগ্রহ নেই তাদের।

চকরিয়া পৌরসভার কয়েকজন সচেতন ভোটার চকরিয়া নিউজকে বলেন, ইভিএম সম্পর্কে ভোটারদের আরও সচেতন করতে হবে। বিশেষ করে বৃদ্ধ ও নারী ভোটারদের এ সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা দেয়া দরকার। অন্যথায় ভোট প্রদানের ক্ষেত্রে জটিলতা তৈরী হওয়ার সম্ভাবনাই বেশী।

এদিকে উপজেলা নির্বাচন অফিস ইভিএেেমর মাধ্যমে ভোট গ্রহণকারী কর্মকর্তা হিসেবে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও সরকারি কর্মকর্তাদের কারিগরী সহায়তার তিনদিন ব্যাপী প্রশিক্ষণ শুরু হয়েছে। কিন্তু ভোটারদের ইভিএম সম্পর্কে ধারণার ব্যাপারে কোন দিকনির্দেশনা না থাকায় বিপাকে রয়েছেন প্রার্থী ও ভোটাররা।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো.শহীদুল ইসলাম চকরিয়া নিউজকে বলেন, ভোট গ্রহণকারী কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণের আওতায় আনা হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নির্বাচনের দুইদিন আগে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ইভিএমএর মাধ্যমে ভোট প্রদানের বিষয়ে ভোটারদের ধারণা দেয়া হবে। আর এতে সহযোগীতা করবেন প্রার্থীরা।

উল্লেখ্য, আগামী ২১ জুন কক্সবাজার জেলায় প্রথমবারের মতো ইভিএম পদ্ধতিতে চকরিয়া পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্টিত হবে। পৌর এলাকার ১৮টি কেন্দ্রে ২৭১১৪ জন পুরুষ ভোটার, ২৩৪৯০ জন নারী ভোটারসহ মোট ৫০৬০৪জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

পাঠকের মতামত: