ঢাকা,বৃহস্পতিবার, ৫ আগস্ট ২০২১

কক্সবাজার শহরে টমটম চালকদের ধর্মঘট, পথচারীদের ভোগান্তি

কক্সবাজার প্রতিনিধি :: কক্সবাজার পৌরসভার কর্তৃক নতুনভাবে দেয়া লাইসেন্স থাকা সত্ত্বেও ট্রাফিক পুলিশের ধরপাকড়ের প্রতিবাদে শহরে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট পালন করছে টমটম চালকরা। এতে যানবাহন সংকটে চরম ভোগান্তি পোহাচ্ছে পথচারীরা। বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারী) ভোর সকাল থেকে এ ধর্মঘট পালন করছে টমটম মালিক-চালকদের বিভিন্ন সংগঠন।

অবরোধ পালনকারী টমটম চালকেরা জানান, কক্সবাজার পৌরসভা নতুনভাবে ৫০০ টমটমের লাইসেন্স দেয়। লাইসেন্স প্রতি নেয়া হয় ৮০ হাজার থেকে দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত। এসব লাইসেন্স নিয়ে টমটম চালাতে গিয়ে ঘটে বিপত্তি। পৌরসভার দেয়া এসব লাইসেন্স জেলা প্রশাসক ও ট্রাফিক পুলিশের অনুমোদন না থাকার অভিযোগে ধরপাকড় শুরু হয়। গত ৭ দিনে প্রায় ৩০০ টি টমটম জব্দ করেছে। টাকা নিয়ে লাইসেন্স নিয়েও তাদের টমটম ধরা হচ্ছে। তাই নিরূপায় হয়ে ধর্মটের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

শামসু নামে এক প্রতিবন্ধী টমটম চালক জানান, এক লক্ষ টাকার বিনিময়ে কক্সবাজার পৌরসভা থেকে একটি লাইসেন্স দেওয়া হয় আমাকে। কিন্তু লাইসেন্সে জেলা প্রশাসকের স্বাক্ষর না থাকার অভিযোগে আমার টমটমটি ট্রাফিক পুলিশ জব্দ করে। কোনভাবেই তারা টমটম দিচ্ছে না। যার ফলে পরিবার পরিজন নিয়ে অনাহারে দিন কাটছে তার।

বুধবার সকালে শহরের লালদিঘী পাড়, বাজার ঘাটা, বার্মিজ মার্কেট ও কালুর দোকান এলাকা ঘুরে দেখা যায়, ভোর সকাল থেকে সড়কে একটিও টমটম নেই। গুটি কয়েক যারা টমটম নিয়ে নেমেছিল মোড়ে মোড়ে চালকেরা তাদের না চালানোর জন্য বাধা দিচ্ছে। এসময় চালকেরা বিভিন্ন দাবি নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করতে দেখা যায়।

এদিকে টমটম মালিক-চালকদের হঠাৎ এমন সিদ্ধান্তে ভোগান্তিতে পড়ে শহরবাসী। যানবাহন সংকটে হাসপাতাল, অফিস-আদালতগামী মানুষ পড়ে বিপাকে। প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে শহরে আসা মানুষ বেশি ভোগান্তি পোহাচ্ছে। অনেকেই চাপা ক্ষোভ নিয়ে বাধ্য হয়ে পায়ে হেঁটেই পৌঁছে নিজ গন্তব্যে। তবে দীর্ঘদিন পর টমটমের দৌরাত্ম্য ও যানজটহীন ফাঁকা সড়ক পেয়ে অনেকেই স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন।

 

পাঠকের মতামত: