ঢাকা,শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১

‘বঙ্গবন্ধু-বাংলাদেশ কর্ণার’ ও ‘স্বাধীনতা মঞ্চ’ উদ্বোধন করবেন মাহবুবুল আলম হানিফ

চকরিয়ায় জনসভা সফল করতে প্রস্তুতি সম্পন্ন -এমপি জাফর আলম

ছোটন কান্তি নাথ, চকরিয়া ::

কাল রবিবার কক্সবাজারের চকরিয়ায় আসছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ এমপি। একইসাথে তাঁর সফরসঙ্গী হিসেবে আসছেন বাংলাদেশ সরকারের পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম এমপি। তাদের আগমণকে ঘিরে গত একমাস ধরে চলে আসা যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য এবং চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম এমএ’র পক্ষ থেকে। একইসাথে দলের পক্ষ থেকেও নেওয়া হয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে পূর্বঘোষিত চকরিয়া সরকারী কলেজ মাঠের জনসভায় বিশাল জনসভায় রূপান্তরিত হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ এমপি এবং উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম এমপি ঢাকা থেকে বিমানযোগে কক্সবাজারে এসে পৌঁছাবেন ৯টার দিকে। এর পর সার্কিট হাউজে অবস্থানের পর দুপুর একটার দিকে চকরিয়া পৌঁছে উদ্বোধন করবেন এমপি জাফর আলমের ব্যক্তিগত উদ্যোগে সিস্টেম চকরিয়া কমপ্লেক্সে স্থাপিত ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ কর্ণার’। এর পর বিকেলে যোগ দেবেন চকরিয়া সরকারী কলেজ মাঠের জনসভায়। সেখানে পৌঁছে নবনির্মিত ‘স্বাধীনতা মঞ্চ’ উদ্বোধনের পর উপস্থিত চকরিয়া-পেকুয়াবাসীর উদ্দেশ্যে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেবেন মাহবুবুল আলম হানিফ এমপি।

দলের পক্ষ থেকে আরো জানানো হয়েছে, মাহবুবুল আলম হানিফ এমপি এবং উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম এমপি ঢাকা থেকে বিমানযোগে কক্সবাজারে এসে পৌঁছাবেন রবিবার সকাল ৯টার দিকে। এর পর সার্কিট হাউজে অবস্থানের পর দুপুর একটার দিকে পৌঁছাবেন চকরিয়া পৌরশহরের সিস্টেম চকরিয়া কমপ্লেক্সে। এর পর শুভ উদ্বোধন করবেন এমপি জাফর আলমের ব্যক্তিগত উদ্যোগে স্থাপিত ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ কর্ণার’। এদিন বিকেলে চকরিয়া সরকারী কলেজ মাঠের জনসভায় উপস্থিত হয়ে সেখানে উদ্বোধন করবেন নবনির্মিত ‘স্বাধীনতা মঞ্চ’। এর পর উপস্থিত চকরিয়া-পেকুয়াবাসীর উদ্দেশ্যে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেবেন মাহবুবুল আলম হানিফ এমপি। এমপি জাফর আলমের সভাপতিত্বে জনসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেবেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম এমপি এবং দলের কেন্দ্রীয় ধর্মবিষয়ক সম্পাদক ও কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফাসহ দলের কেন্দ্রীয়, জেলা, উপজেলাসহ বিভিন্নস্তরের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য দেবেন জনসভায়।

চকরিয়া কলেজ মাঠের জনসভা উপলক্ষে গত একমাস ধরে চলে আসা চকরিয়া, পেকুয়া, মাতামুহুরী উপজেলা এবং তিন উপজেলার ২৫টি ইউনিয়ন এবং চকরিয়া পৌরসভায় দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম বেশ জোরদার হয়ে উঠে। মূলত মাহবুবুল আলম হানিফের আগমণকে কেন্দ্র করে দলের তৃণমূলের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মাঝে বেশ উৎসাহ-উদ্দীপনা পরিলক্ষিত হয়। অপরদিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়ার ২৯ কিলোমিটারজুড়ে স্থাপন করা হয়েছে শতাধিক তোরণ। চকরিয়া পৌরশহর চিরিঙ্গা এবং জনসভাস্থল চকরিয়া কলেজ মাঠকেও সাজানো হয়েছে বর্ণিল সাজে। জনসভাকে কেন্দ্র করে স্থাপিত মঞ্চসহ আশপাশে পুলিশের পক্ষ থেকে জোরদার করা হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য জাফর আলমের ব্যক্তিগত সহকারী আমিন চৌধুরী জানান, এমপি মহোদয় এবং দলের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ এমপির চকরিয়া আগমণ উপলক্ষে। বিশেষ করে জনসভাকে জনসমুদ্রে রূপান্তরিত করতে তিন উপজেলা, চকরিয়া পৌরসভা, ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ড পর্যায়েও দলের কর্মীসভা সম্পন্ন করা হয়।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম এমএ বলেন, ‘চকরিয়া সরকারী কলেজ মাঠে রবিবারের জনসভাকে সফল করতে সকল ধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। আশা করি এই জনসভায় অর্ধ লক্ষাধিক মানুষের সমাগম হবে। কারণ চকরিয়া-পেকুয়ার মানুষ বিএনপি-জামায়াতের কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়ে তারা আওয়ামী লীগের উন্নয়নমূখী রাজনীতি এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনার প্রতি আস্থা ও বিশ^াস রেখেছেন।’

কাল থেকে উম্মুক্ত হবে ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ কর্ণার’ ঃ

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ এমপি কর্তৃক শুভ উদ্বোধনের পর জনগণের জন্য উম্মুক্ত করে দেওয়া হবে চকরিয়া পৌরশহরের সিস্টেম চকরিয়া কমপ্লেক্সের চতুর্থ তলায় স্থাপিত বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ কর্ণারকে। প্রায় ৮ হাজার বর্গফুটের মধ্যে স্থাপিত এই কর্ণারে সংক্ষেপে চিত্রায়িত করা হয়েছে বাংলাদেশের ৬৮ হাজার বর্গমাইলের ইতিহাস, ঐতিহ্য, ভাষা আন্দোলন, বঙ্গবন্ধু, ছয়দফা, স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ইতিহাস। এছাড়াও বরেণ্য বাঙালির ইতিহাস, জাতীয় চার নেতার প্রতিচ্ছবিও রয়েছে এই কর্ণারে। অপরদিকে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশ^নেত্রী হয়ে উঠা, বিশে^র কাছ থেকে বড় বড় যেসব অর্জন বাংলাদেশের জন্য এনেছেন তাও তুলে ধরা হয়েছে এই কর্ণারে। দেশ-বিদেশের বরেণ্য সাহিত্যিক ও লেখকদের মূল্যবান বইয়ের সমাহারে স্থাপন করা হয়েছে লাইব্রেরীও। এছাড়াও কর্ণারে রয়েছে বিশাল স্পেসের হলরুম এবং সেমিনার কক্ষ।

 

পাঠকের মতামত: