ঢাকা,সোমবার, ১ মার্চ ২০২১

চকরিয়া পৌরনির্বাচনে মেয়র পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী জিয়াবুলের আগাম প্রচারণা শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক :: এখনো তফসিল ঘোষণা করা না হলেও নির্বাচন কমিশনের সর্বশেষ বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ১১ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হওয়ার দিনক্ষণ নির্ধারণ করা হয়েছে কক্সবাজারের চকরিয়া পৌরসভার নির্বাচন। সম্প্রতি নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তের পর নড়েচড়ে বসেছে মেয়র ও কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করতে ইচ্ছুক প্রার্থীরা। দীর্ঘদিন ধরে পৌরসভার প্রতিটি পাড়া-মহল্লা চষে বেড়াচ্ছেন নাগরিক কমিটির ব্যানারে মেয়র পদে প্রার্থী হতে যাওয়া পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জিয়াবুল হক। প্রতিদিন সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত তিনি গণসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন।

তবে নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপি অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছে কী-না তা এখনো দলের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা না দিলেও দলের নেতাকর্মীরা কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের দিকে নজর রেখেছেন।

অপরদিকে আওয়ামী লীগ তথা নৌকার মনোনয়ন পেতে বর্তমান পৌরমেয়র আলমগীর চৌধুরীসহ দলের বেশ কয়েকজন নেতা মেয়র পদে দলীয় তথা নৌকার মনোনয়ন পেতে কেন্দ্রে জোর লবিয়িং শুরু করেছেন। দলীয় মনোনয়ন পেতে আরো যারা মাঠে তৎপর রয়েছেন, তারা হলেন চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন জয়নাল, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ওয়ালিদ মিলটনসহ আরো কয়েকজন।

এরইমধ্যে নাগরিক কমিটির ব্যানারে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করার ঘোষণা দিয়েছেন পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের জনপ্রিয় কাউন্সিলর জিয়াবুল হক। শুধুমাত্র নিজস্ব ওয়ার্ড কেন্দ্রীক না হয়ে দীর্ঘদিন ধরে চকরিয়া পৌরসভার সকল ওয়ার্ডের জনগণের সাথে সু-সম্পর্ক বজায় রেখেছেন কাউন্সিলর জিয়াবুল হক।

পৌর এলাকার বেশ কয়েকজন সচেতন ভোটার জানান-প্রাকৃতিক দুর্যোগ, ধর্মীয় অনুষ্ঠানসহ প্রতিনিয়ত সমাজের গরীব, অসহায়, খেটে খাওয়া নারী-পুরুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন জনপ্রিয় কাউন্সিলর জিয়াবুল হক। তিনি প্রতিনিয়ত সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন সমাজের সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের জন্য। বিশেষ করে করোনাকালীন জিয়াবুল হক অনেকটা নীরবেই মানবিক সহায়তা দিয়ে গেছেন। করোনাকালীন তাঁর মানবিকতার ছোঁয়া সবার নজরও কেঁড়েছে। পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের সিংহভাগ পরিবারে তাঁর মানবিক সহায়তা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কাউন্সিলর জিয়াবুল হকের কাছের একাধিক কর্মী জানিয়েছেন, আগামী পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে নাগরিক কমিটির ব্যানারে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্ধিতায় অবতীর্ণ হবেন জিয়াবুল হক। সেজন্য গত ৬ মাস আগে থেকে সকল ধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করে রাখা হয়েছে। বিশেষ করে পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ড এবং পাড়াভিত্তিক শক্তিশালী কমিটিও গঠন করা হয়েছে। যেসব কমিটিতে রয়েছে সমাজের সর্বস্তরের গ্রহণযোগ্য ব্যক্তিরা। পাশাপাশি তারা প্রতিটি বাড়ি বাড়ি গিয়ে জিয়াবুল হকের জন্য দোয়া ও সমর্থন অব্যাহত রেখেছেন।

সরকার দল আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা এখনো কোন মন্তব্য না করলেও নাগরিক কমিটির ব্যানারে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দেওয়া পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জিয়াবুল হক বলেন, ‘চকরিয়া পৌরসভার মানুষ আগামী নির্বাচনে মেয়র পদে নেতৃত্বের পরিবর্তন আশা করছে। জনগণের সেই আশা-আকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটাতে এবং তাদেরই সমর্থন নিয়ে নির্দলীয় ব্যানারে আমি প্রার্থী হবো। মানসিকভাবে সেই প্রস্তুতি নিয়েই নির্বাচনী মাঠে এগিয়ে যাচ্ছি আমি।’

পাঠকের মতামত: