Home » চকরিয়া » চকরিয়া ইউপি নির্বাচনে পর্যবেক্ষণ কার্ড দিতে গড়িমসি, সাংবাদিকদের নিয়ে কটাক্ষ করে মন্তব্য করলেন নির্বাচন কর্মকর্তা

চকরিয়া ইউপি নির্বাচনে পর্যবেক্ষণ কার্ড দিতে গড়িমসি, সাংবাদিকদের নিয়ে কটাক্ষ করে মন্তব্য করলেন নির্বাচন কর্মকর্তা

It's only fair to share...Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

Chakaria Picture 22-04-2016 (2)চকরিয়া অফিস ঃ

চকরিয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন পর্যবেক্ষণে স্থানীয় সাংবাদিকদের কার্ড প্রদানে গড়িমসি সহ খারাপ মন্তব্য করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘন্টার পর ঘন্টা বসিয়ে রেখে হয়রানি করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার সাংবাদিকদের কটাক্ষ করে বলেছেন; সাংবাদিকরা লেখাপড়া জানেন না, কাউকে যুক্ত বর্ণ বা ব্যঞ্জন লিখতে দিলে লিখতে পারবেন না। তারা শুধু টাকার জন্য হন্য হয়ে বসে থাকেন। কারো কাছ থেকে একশত টাকা পাঁচশত টাকা নিতে পারলে ভিক্ষুকের মতো সবাই ভাগ করে নেয়। তারা সাংবাদিকতা না করে ভিক্ষা করলেই বেশী ভালো হতো। সাংবাদিকদের কার্ড দেয়া আমার কাজ নয়। গতকাল ২২এপ্রিল সন্ধ্যায় চকরিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাখাওয়াত হোসেন তার অফিসে এসব মন্তব্য করেছেন।

চকরিয়া উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে আজ তৃতীয় ধাপের নির্বাচন অনুষ্টিত হচ্ছে। এই নির্বাচন পর্যবেক্ষণের জন্য চকরিয়ায় কর্মরত জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকার সংবাদিকরা উপজেলা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করেন। উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার নির্বাচন কমিশন কর্তৃক দেয়া সাংবাদিক কার্ড পাওয়ার জন্য তার বরাবরে অবেদন করার পরামর্শ দেন। যথা সময়ে তার কাছে আবেদন করা হয়। আজ ২২এপ্রিল স্থানীয় সাংবাদিক কার্ড নেয়ার জন্য সারাদিন অপেক্ষা করতে হয়। সাংবাদিকদের কার্ড প্রদানে উপজেলা নির্বাচন অফিসার নানা তালবাহনা শুরু করে দেন। একবার বলেন, আপনারা জেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে কার্ড নেন। আমি এ কার্ড দেয়ার দায়ীত্ব নেই। আবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সাংবাদিকদের কার্ড দেয়া শুরু করেন। কয়েকটি কার্ড দেয়ার পর আবার বন্ধ করে দেন। তাও মুখ দেখে দেখে দিয়েছেন। বেশ কয়েকজন সাংবাদিককে কার্ড দেননি। এসময় নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ সাখাওয়াত হোসেন সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে বলেছেন; সাংবাদিকরা লেখাপড়া জানেন না, কাউকে যুক্তবর্ণ লিখতে দিলে লিখতে পারবে না। তারা শুধু টাকার জন্য হন্য হয়ে বসে থাকেন। বহু সাংবাদিক আমার অফিসের নিচে একটি চায়ের দোকানে প্রত্যেকদিন উৎপেতে বসে থাকেন। সেখানে কারো কাছ থেকে একশত টাকা দুইশত টাকা নিতে পারলে ভিক্ষুকের মতো সবাই ভাগ করে নেয়। তারা সাংবাদিকতা না করে ভিক্ষা করলেই পারতো ? আমি ব্যক্তিগত ভাবে সাংবাদিকদের একেবারে সহ্য করতে পারি না। তারা যখন তখন বাড়াবাড়ি করে। এব্যাপারে চকরিয়া উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ সাখাওয়াত হোসেনের কাছ থেকে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, বেশীর ভাগ সাংবাদিক তাই করেন। আপনারা কেউ কেউ হয়তো এ রকম আচরণ করেন না। উপজেলা নির্বাচন অফিসার কর্তৃক সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে কটাক্ষ করার ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সাহেদুল ইসলাম নির্বাচন শেষ হয়ে গেলে বিষয়টি দেখবেন বলে আশ্বস্থ করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

জেলায় হালনাগাদে বদিসহ ৭৩ ইয়াবা গডফাদার

It's only fair to share...27400নিউজ ডেস্ক :: ইয়াবা গডফাদারের নতুন তালিকা প্রকাশের পর নড়েচড়ে বসেছে ...