ঢাকা,মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০

শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে চকরিয়া উপজেলা প্রশাসনের মতবিনিময়

স্বাস্থ্যবিধি মেনে পালিত হবে শারদীয় দুর্গোৎসব

নিজস্ব প্রতিবেদক, চকরিয়া ::  হিন্দু সম্প্রদায়ের বৃহত্তর ধর্মীয় অনুষ্ঠান শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে চকরিয়া উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (১৪ অক্টোবর) সকাল ১১টায় উপজেলা পরিষদ মোহনায় মিলানয়াতনে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলম।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সৈয়দ শামসুল তাবরীজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় এমপি জাফর আলম বক্তব্য বলেন, শারদীয় দুর্গোৎসব হিন্দু সামপ্রদায়িক বড় উৎসবের একটি অন্যতম উৎসব। ধর্ম যার যার, উৎসব সবার। তবে এবারের পূজায় করোনার কারনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। উৎসবের মাইক বা উচ্চস্বরে সাউন্ড সিস্টেম কিছু বাজানো যাবে না।

তিনি বলেন, বিশ্বে বাংলাদেশ একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ হিসেবে পরিচিত। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চান,নিয়ম বিধি মেনে শারদীয় উৎসব যেন শান্তিপূর্ণ ভাবে পালিত হয়। চকরিয়া পূজার মণ্ডপে ১০ হাজার মাক্স বিতরণ করা হবে। পূজা কমিটির নেতৃবৃন্দের কাছে অনুরোধ জানান প্রতিমা বিসর্জন আগের মতো সবাই এক সাথে যেনে বিসর্জনে না দেওয়া হয়। নিজ নিজ পূজার মণ্ডপে পাশেবর্তীতে শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিমা বিসর্জন দিতে সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ ফজলুল করিম সাঈদী, চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফাসিয়াখালী ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন হক জেসি চৌধুরী ও চকরিয়া থানার ওসি তদন্ত আশরাফুল ইসলাম। সভায় উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সাংবাদিক, বিভিন্ন শ্রেণীর রাজনৈতিক ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ শামসুল তাবরীজ বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে বাংলাদেশ সরকার ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের ২৬ দফা নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবছর শারদীয় দূর্গোৎসব আয়োজন করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। পূজা মন্ডপগুলোতে সাউন্ড সিস্টেম ও সীমিত পর্যায়ে আলোকসজ্জা, জনসমাগম সীমিত রাখা ও মাদক মুক্ত পরিবেশে পূজা উদযাপনের বিষয়ে বিশেষ জোর দেয়া হয়। আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনের ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতা কামনা করা হয়। এছাড়াও ১০০ ভাগ নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ব্যাপারে নিশ্চয়তা প্রদান করেছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

 

 

 

পাঠকের মতামত: