ঢাকা,রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১

চকরিয়ায় বাশেঁর সাকোঁ থেকে পড়ে ভেসে গেছে ৭ বছরের শিশু

এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া ::  কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নে গ্রামীণ একটি বাশেঁর সাকোঁ পার হওয়ার সময় পড়ে গিয়ে বানের পানিতে ভেসে গেছে মারুফা আক্তার (৭) নামের এক শিশু মেয়ে। গতকাল রোববার দুপুর একটার দিকে বরইতলী ইউনিয়নের ১নম্বর ওয়ার্ডের ডেইঙ্গাকাটা পুর্ববিল সংলগ্ন হারবাং ছড়া শাখাখালে ঘটেছে এ মর্মান্তিক ঘটনা। তবে ওইসময় শিশুটির সঙ্গে পানিতে পড়ে যাওয়া তাঁর খালাসহ অপর দুই শিশু সাঁতরিয়ে তীরে উঠতে সক্ষম হয়েছে। শিশু মারূফা বরইতলী ইউনিয়নের ১নম্বর ওয়ার্ডের ডেইঙ্গাকাটা পুর্ববিল গ্রামের জিয়াবুল করিমের মেয়ে।

খবর পেয়ে ঘটনার পরপর তাৎক্ষনিক চকরিয়ার ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে শিশুটিকে উদ্ধারে চেষ্ঠা চালালে এই রির্পোটটি তৈরীর আগমুর্হুত গতকাল রাত ৯টায়ও শিশুটির সন্ধান মেলেনি বলে নিশ্চিত করেছেন বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জালাল আহমদ সিকদার।

তবে স্বজন এবং পাড়া-প্রতিবেশিরা মিলে স্থানীয়ভাবে শিশুটির মরদেহ উদ্ধারে চেষ্ঠা অব্যাহত রেখেছেন বলে জানিয়েছেন বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান।

বরইতলী ইউপির ডেইঙ্গাকাটা পুর্ববিল গ্রামের বাসিন্দা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ফরিদুল আলম বলেন, রোববার দুপুর একটার দিকে সাতবছরের শিশু মারুফা আক্তার তাঁর খালা এবং দুই খালাতো বোনের সঙ্গে বাড়ি ফিরছিলেন। বাড়ির অদুরে হারবাংছড়া শাখাখালের বাঁেশর সাকোঁর উপর দিয়ে পার হবার সময় অসাবধান বশত: সবাই পানিতে পড়ে যায়। তবে এসময় তাঁর খালাসহ অপর দুই শিশু সাঁতরিয়ে তীরে উঠতে সক্ষম হলেও শিশু মারূফা ভেসে গেছে বানের পানির স্রোতে।

তিনি বলেন, ঘটনাটি স্থানীয় সুত্রে জানতে পেরে তাৎক্ষনিক চকরিয়ার ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে শিশুটিকে উদ্ধারে চেষ্ঠা চালায়। কিন্ত শিশুটি পানির স্রোতের টানের নীচের দিকে চলে যাওয়ার তাকে পাওয়া যায়নি। ##

পাঠকের মতামত: