ঢাকা,বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

সেন্টমার্টিনে সাংবাদিকের উপর পুলিশ কনস্টেবলের হামলা

বিশেষ প্রতিবেদক ::
প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিনে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সেন্টমার্টিন পর্যটন শাখার সভাপতি ও সেন্টমার্টিন বিডি নিউজের সম্পাদক এম কেফায়েত উল্লাহর উপর পুলিশ কনস্টেবল স্বরণ বড়ুয়ার অতর্কিত হামলার শিকার হলেন। ২০মে বুধবার বিকালে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ির সামনে এই ঘটনা ঘটে ।

মারাত্মক আঘাত প্রাপ্ত সাংবাদিক কেফায়েত জানান, শবে-কদরে কবর জিয়ারতে কবর স্থানে যাওয়ার পথ না থাকায় পার্শ্ববর্তী পুলিশ ফাঁড়ির সামনে দিয়েই যেতে হয়। আমি কবরস্থানে যাওয়ার পথে বাধা প্রাপ্ত হই । এ ব্যাপারে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ফজলুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে অতকিতে কনস্টেবল শরণ বড়ুয়া আমাকে লাঠি দিয়ে এলোপাথাড়ি আঘাত করতে থাকেন ।তার সাথে সাইফুল ও লোকমান নামের আরও দুইজন কনস্টেবলও ছিলেন। রক্তাক্ত জখম হয়ে লুটিয়ে পড়লে স্থানীয়রা এসে আমাকে দ্রুত সেন্টমার্টিন ১০শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে আসে।

সেন্টমার্টিন হাসপালের সহকারী মেডিকেল অফিসার সৈকত জানান, সাংবাদিক কেফায়েতের মাথায় আঘাত গুরুতর। শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তার উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার মেডিকেলে রেফার করা হবে।

এই বিষয়ে সেন্টমার্টিন পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ফজলুলের কাছে জানতে চাওয়ার জন্য তার ০১৭১১-৩৯৯৪৫২ এই নাম্বারে একাধিকবার ফোন করেও সাড়া পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সেন্টমার্টিন যুবসমাজ ও ছাত্রসমাজের মাঝে গভীর ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও এঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে সাংবাদিককে মারধর ও মারাত্মক জখম করায় কক্সবাজার অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি অধ্যাপক আকতার চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব কান্তি দে এক বিবৃতিতে তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করেছেন এবং দোষীদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানিয়েছেন

পাঠকের মতামত: