ঢাকা,মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০

চকরিয়ার ভুয়া এমবিবিএস ডাক্তারকে কুতুবদিয়ায় এক বছরের কারাদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুতুবদিয়া ::  কুতুবদিয়ায় বদরুদ্দোজা (৪০) নামে চকরিয়ার ভুয়া এক এমবিবিএস ডাক্তারকে এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় জামাল হোসেন (৩৬) নামে তার এক সহযোগীকে ৩ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। গতকাল কুতুবদিয়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (সহকারি কমিশনার ভূমি) মুহাম্মদ হেলাল উদ্দিন চৌধুরী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এই দণ্ড দেন। বদরুদ্দোজা চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের মো. বকসুরের ছেলে। জামালও একই উপজেলার পূর্ব বড় ভেওলা এলাকার নুরুল ইসলামের ছেলে।
কুতুবদিয়া থানার ওসি মো. দিদারুল ফেরদৌস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে চকরিয়া নিউজকে বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বড়ঘোপ বাজারের আদিল শপিং কমপ্লেঙের আল করিম ফার্মেসিতে অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় ঢাকা মেডিকেল কলেজের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডাক্তার এএসডি ফরহাদের নামে ভুয়া পরিচয় দিয়ে ও তার ব্যবস্থাপত্র ব্যবহার করে রোগী দেখার দায়ে বদরুদ্দোজাকে আটক করা হয়। তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে তার সহযোগী রেফকো ফার্মার এরিয়া ম্যানেজার পরিচয়দানকারী জামাল হোসেনকেও আটক করা হয়।
পরে বিষয়টি কুতুবদিয়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (সহকারি কমিশনার ভূমি) মুহাম্মদ হেলাল উদ্দিন চৌধুরীকে অবহিত করা হয়। সাথে সাথে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। আসামির স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাৎক্ষণিক ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে মেডিকেল ডেন্টাল কাউন্সিলিং আইনের ২৮ (২) ধারা মতে বদরুদ্দোজাকে ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও তার সহযোগী জামাল হোসেনকে একই ধারায় ৩ মাসের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন। এসময় আল-করিম ফার্মেসিতে মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ রাখার দায়ে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

পাঠকের মতামত: